মেইন ম্যেনু

সরকার স্বাধীনতার চেতনার সঙ্গে বেইমানি করছে: খালেদা

বর্তমান সরকার মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত স্বাধীনতার চেতনার সঙ্গে বেইমানি করছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। তিনি বলেছেন, যে স্বপ্ন নিয়ে মানুষ ১৯৯০ সালে স্বৈরশাসনের অবসান ঘটিয়েছিল, সেই স্বপ্ন বর্তমান সরকার তছনছ করে দিয়েছে।

শনিবার রাতে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বাণীতে খালেদা জিয়া এসব কথা বলেন। রবিবার স্বৈরাচার পতন দিবস উপলক্ষে এ বাণী দেন বিএনপি চেয়ারপারসন।

১৯৯০ সালের ৬ ডিসেম্বর আন্দোলনের মুখে স্বৈরাচার এরশাদ সরকারের পতন হয়। স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে আওয়ামী লীগ-বিএনপি একসঙ্গে থাকলেও পরবর্তী সময়ে দুই দলের বৈরিতা বাড়তেই থাকে। এমনকি স্বৈরাচার এরশাদকে বিভিন্ন সময় দুই দলই নিজেদের স্বার্থে কাছে টেনে নিয়েছে। বর্তমান সরকারের অন্যতম শরিক এরশাদের জাতীয় পার্টি; আবার জাপা সংসদের প্রধান বিরোধী দলও।

খালেদা জিয়া বাণীতে বলেন, স্বাধীনতার ৪৪ বছরে বাংলাদেশে গণতন্ত্র বারবার হোঁচট খেয়েছে। গণবিরোধী শাসনের মুখে গণতন্ত্রের অভিযাত্রা ব্যাহত হয়েছে। কিন্তু গণতন্ত্রপ্রিয় মানুষ বাধাকে অতিক্রম করে গণতন্ত্রের পথচলাকে নির্বিঘ্ন করেছে। গণতন্ত্র এখন আবারও সংকটের মুখে। বিনা ভোটের কর্তৃত্ববাদী সরকারের একদলীয় শাসনের চরিত্রগুলো ক্রমেই স্পষ্ট হয়ে উঠছে।

খালেদা বলেন, ৫ জানুয়ারির একতরফা নির্বাচন জাতিকে একদলীয় নিষ্ঠুর শাসনের শৃঙ্খলে বন্দী করেছে। মানুষের মৌলিক মানবাধিকারকে শাসকদল, গণতন্ত্র হত্যাকারী পতিত স্বৈরাচার ও ৭২-৭৫ সময়ের সন্ত্রাসীরা এক জোট হয়ে গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানকে ধ্বংস করছে।

তিনি বলেন, সব রাজনৈতিক দলের ইচ্ছায় নিরপেক্ষ, নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। এরা তা সংবিধান থেকে মুছে দিয়েছে। বিনা ভোটের সরকার সংবিধানে বর্ণিত জনগণের মৌলিক অধিকার সম্পূর্ণভাবে কেটে নিয়েছে। দেশে গণতন্ত্রের বিন্দুমাত্র চিহ্ন নেই, মানুষের জান-মালের নিরাপত্তা নেই।

’৯০র চেতনায় সবাইকে গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠার নতুন সংগ্রামে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান বিএনপি চেয়ারপারসন।






মন্তব্য চালু নেই