মেইন ম্যেনু

সস্তায় লিঙ্গ পরিবর্তনে বিদেশিদের প্রথম পছন্দ ভারত

ট্রান্সজেন্ডার বা লিঙ্গ পরিবর্তনকামী এখন উন্নত বিশ্বে নতুন এবক ট্রেন্ডে পরিণত হয়েছে। এর পেছনে লাখ লাখ ডলার খরচ করছে মানুষ। বিদেশে এটি অত্যন্ত ব্যয়বহুল। অস্ত্রোপচার এবং নিয়মিত হরমোনাল থেরাপি নিতে সর্বস্ব ব্যয় হয়ে যাওয়ার জোগার হয়। আর এ কারণেই ভারতে আসছেন তারা। এদেশটি এখন পরিবর্তনকামীদের প্রথম পছন্দে পরিণত হয়েছে।

ভারতীয় গণমাধ্যমগুলোতে এমন প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে। সেখানে উদাহরণ হিসেবে ইংল্যান্ড থেকে এ ভারতে আসা গ্রাহাম পাসকো নামে পঞ্চাশোর্ধ এক ব্যক্তি গল্প তুলে ধরা হয়েছে।

ছোটবেলা থেকে জেন্ডার ডিস্ফোবিয়ায় ভুগতেন পাসকো। অবশেষে ৫৪ বছর বয়সে এসে লিঙ্গ পরিবর্তন করার কথা ভাবলেন তিনি। ইংল্যান্ডে বেসরকারি ক্লিনিকে এই অপারেশনের খরচ প্রায় ৪০ লাখ রুপি। আর সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে গেলে অপেক্ষা করতে হবে চার বছর।

ইন্টারনেটে তিনি জানতে পারেন, ভারতে এই অপারেশনের সুব্যবস্থা রয়েছে এবং ইংল্যান্ডের তুলনায় অনেক কম খরচে। ২০১৪ সালে ভারতে এসে তিনি ডিসেম্বর মাসে একটি অপারেশন করান। পরে মার্চে আরেকটি অপারেশন হয়। খরচ হয় ৯ লাখ রুপি। এখন তিনি সু পাসকো হয়ে দেশে ফিরছেন।

transgenderতবে সু একা নন, ইউরোপ, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা প্রভৃতি বিভিন্ন দেশে থেকে প্রচুর মানুষ ভারতে আসছেন লিঙ্গ পরিবর্তনের অস্ত্রোপচার করার জন্য। অবশ্য বর্তমানে এ বিষয়ে শীর্ষে রয়েছে থাইল্যান্ড। সে দেশের পর্যটনের পর সবচেয়ে বড় ব্যবসা এই লিঙ্গ পরিবর্তনের অস্ত্রোপচার। সে দেশের বিভিন্ন হাসপাতাল, ক্লিনিকে অভিজ্ঞ চিকিৎসকরা দীর্ঘ দিন ধরে এই অপারেশন করে আসছেন। তবে সেখানেও ভারতের তুলনায় খরচটা অনেক বেশি। তাই লিঙ্গ পরিবর্তনে ইচ্ছুক পর্যটকদের কাছে ক্রমেই জনপ্রিয় হচ্ছে ভারত।

এক জরিপ প্রতিবেদন অনুযায়ী, আগামী বছরে প্রায় ৩২ কোটি পর্যটক শুধু লিঙ্গ পরিবর্তন অপারেশন করাতে ভারতে আসতে পারেন। সে দিকে থেকে দেখতে গেলে থাইল্যান্ডের মতো এ দেশও ধীরে ধীরে লিঙ্গ পরিবর্তনের হাব হয়ে উঠছে।

ডা. পরাগ তেলাঙ্গ, ডা. নরেন্দ্র কৌশিক, ডা. সঞ্জয় পাণ্ডে-র মতো এমন অনেক চিকিৎসকরা রয়েছেন যারা লিঙ্গ পরিবর্তনের এই অপারেশন করানোর পর প্লাস্টিক সার্জারি করেন। তারাও এটা স্বীকার করছেন, গত কয়েক বছর ধরে প্রচুর বিদেশি নাগরিক ভারতে চিকিৎসা করাতে আসছেন।

উল্লেখ্য, গর্ভ ভাড়া দেয়ার (সারোগেট মাদার) ব্যবসায়ও শীর্ষে রয়েছে ভারত। এখানে বিশেষ করে সমকামী দম্পতিরা সন্তান নেয়ার জন্য ভারতীয় গরিব নারীদের গর্ভ ভাড়া নেয়। সন্তান ভূমিষ্ঠ হলেই তারা দেশে নিয়ে যায়।






মন্তব্য চালু নেই