মেইন ম্যেনু

সহজে গলবে না আইসক্রিম!

আইসক্রিম খেতে আমরা ছোটবড় সবাই কমবেশি সবাই পছন্দ করি। কিন্তু এ আইসক্রিম খাওয়ার একটা ঝামেলা আছে। সেটা হচ্ছে, আইসক্রিম তাড়াতাড়ি খেয়ে ফেলতে হয়। একটু আরাম আয়েশ করে গালগল্প করতে করতে আইসক্রিম খাওয়ার সুযোগ খুব একটা নেই। এর কারণ আইসক্রিম খুব দ্রুত গলে যায়। কিন্তু আইসক্রিমপ্রেমীদের জন্য বিজ্ঞানীরা একটা সুখবর দিচ্ছেন। তারা বলছেন, খুব সহজেই গলে যাবে না, এরকম আইসক্রিম তৈরী করেছেন স্কটল্যান্ডের একদল বিজ্ঞানী। তারা বলছেন, গরমে আইসক্রিম যাতে সহজে না গলে যায়, তার গোপন রহস্য তারা ধরতে পেরেছেন।

ডান্ডি এবং এডিনবরা বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা বলছেন, প্রকৃতিতেই এমন একটি প্রোটিন আছে যা আইসক্রিমকে সহজে গলতে দেয় না। এডিনবরা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর কেইট ম্যাকফি বলছেন, আইসক্রিম গলবেই, এটাকে আটকে রাখা যাবে না। কিন্তু নতুন এ উপাদানটি আইসক্রিমে মেশানো হলে সেটা গলতে আরো অনেক বেশি সময় লাগবে। খাওয়ার আগেই সেটা হাতের আঙুল চুইয়ে পড়ে যাবে না।

এ গবেষক বলেন, আমরা যে আইসক্রিম খাই তাতে খুব বড় কোন পরিবর্তন আনা হচ্ছে না। শুধু এর একটা উপাদানকে প্রতিস্থাপন করা হচ্ছে মাত্র। আপনিতো দেখেছেন ফ্রিজে বেশি সময় ধরে আইসক্রিম রেখে দিলে কী হয়। অনেক বেশি শক্ত হয়ে যায। বরফের ক্রিষ্টাল তৈরী হওয়ার কারণে অাইসক্রিমের উপাদানগুলো তখন একসাথে আটকে থাকে। নতুন এ প্রোটিনটিও ঠিক একইভাবে আইসক্রিমকে তাড়াতাড়ি গলে যাওয়ার হাত থেকে রক্ষা করবে।

এ প্রোটিনটির নাম বিএসআইই (BSIE)। আইসক্রিম গলে যাওয়ার প্রক্রিয়াকে শ্লথ করে দেয় এ প্রোটিন। আইসক্রিমের মধ্যে পানিসহ যেসব উপাদান আছে, সেগুলোকে একসাথে ধরে রাখে এ প্রোটিন। শুধু তাই নয়, এ উপাদানটির কারণে আইসক্রিমের স্বাদ একই থাকে কিন্তু এটা ক্যালরির পরিমাণ কমিয়ে দিতে পারে।

তবে দু:সংবাদ হচ্ছে এ আইসক্রিম আপনি এখনই খেতে পারবেন না। এটা বানানো হয়েছে গবেষনাগারে। ধারণা করা হচ্ছে, এ আইসক্রিমের বাজারে আসতে সময় লাগবে আরো তিন তেকে পাঁচ বছর।

সূত্র: বিবিসি






মন্তব্য চালু নেই