মেইন ম্যেনু

সহজ ৫ উপায়ে সারিয়ে তুলুন নিম্ন রক্তচাপের সমস্যা

উচ্চ রক্তচাপ স্বাস্থ্যের জন্য যে কী পরিমাণ ভয়ংকর হতে পারে, সে সম্পর্কে কম বেশি সবারই ধারণা রয়েছে। কখনও কখনও নিম্ন রক্তচাপও ভয়ংকর প্রমানিত হতে পারে আপনার জন্য। নিম্ন রক্তচাপকে হাইপারটেশন বলা হয়। যদি ব্লাড প্রেশার ৯০ বা ৯০ এর নিচে হয় তবে নিম্ন রক্তচাপ আছে ধারণা করা হয়। নিম্ন রক্তচাপের কারণে মস্তিষ্কে রক্ত ঠিকমত পৌঁছায় না। যার কারণে অনেক সময় নিম্ন রক্তচাপে মানুষ অজ্ঞান হয়ে পড়ে।

লক্ষণ

মাথা ঘোরা
মাথা ঝিম ঝিম করা
অজ্ঞান হয়ে যাওয়া
শ্বাস কষ্ট
দুর্বল লাগা ইত্যাদি।

উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রনের জন্য ঔষধ দেওয়া হলেও নিম্ন রক্তচাপের জন্য সাধারণত কোন ঔষধ দেওয়া হয় না। সাধারণত খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তন করতে বলা হয়। ঘরোয়া কিছু উপায় আছে যার মাধ্যমে নিম্ন রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করা যায়। এমনকি সাথে সাথে রক্তচাপ বাড়ানো সম্ভব হয়।

১। লবণ পানি

লবণ পানি সাথে সাথে রক্তচাপকে বৃদ্ধি করা দেয়। কারণ লবণে সোডিয়াম আছে যা রক্তচাপকে বাড়িয়ে দেয়। তবে অতিরিক্ত লবণ গ্রহণ করা উচিত নয়। এক গ্লাস পানিতে আধা চামচ লবণ মিশিয়ে নিন। এটি পান করুন। প্রতিদিন ২ গ্লাস পান করুন। দেখবেন রক্তচাপ বৃদ্ধি পেয়েছে।

২। কফি

দুধ চিনি ছাড়া ব্ল্যাক কফি ব্লাড প্রেশার দ্রুত বৃদ্ধি করে দিয়ে থাকে। ১ থেকে ২ কাপ ব্ল্যাক কফি পান করুন প্রতিদিন। আপনি যদি বুঝতে পারেন আপনার মাথা ঘুরাছে বা শরীর খারাপ লাগছে তবে ব্ল্যাক কফি খেয়ে নিন। এটি সাথে সাথে প্রেসার নিয়ন্ত্রণ করবে। আপনার যদি অন্য কোন শারীরিক সমস্যা থাকে, তবে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

৩। কিশমিশ

নিম্ন রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে কিশমিশ প্রাচীনকাল থেকে ব্যবহার হয়ে আসছে। ৩০-৪০ টি কিশমিশ এক কাপ পানিতে সারা রাত ভিজিয়ে রাখুন। পরের দিন সকালে খালি পেটে এটি খান। কিশমিশের সাথে কিশমিশ ভেজানো পানিও পান করুন। এভাবে কয়েক সপ্তাহ কিশমিশ খান। কিছুদিনের মধ্যে প্রেশার নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে।

৪। গাজরের রস

সকালে খালি পেটে এক গ্লাস গাজরের রস পান করুন। এতে সামান্য মধু মিশিয়ে নিতে পারেন। এটি দিনে দুইবার পান করুন। এটি ব্লাড প্রেশার বাড়াতে সাহায্য করবে।

৫। বাদাম দুধ

৭-৮ টি কাঠবাদাম সারা রাত পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। সকালে এটির খোসা ছাড়িয়ে পেস্ট করে নিন। এবার এক গ্লাস দুধে বাদামের পেস্ট মিশিয়ে নিন। গরম গরম পান করুন।

নিন্ম রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে কোন ঔষধ দেওয়া হয় না। শুধুমাত্র সচেতনতা, সঠিক খাদ্যাভ্যাস এবং নিয়মিত ঘুম পারে নিন্ম রক্তচাপ থেকে মুক্তি দিতে।






মন্তব্য চালু নেই