মেইন ম্যেনু

সাংবাদিক রুবাইত হাসানের উপর হামলা

আওয়ার নিউজ বিডি’র সাংবাদিক ও বজ্রকণ্ঠের সহকারী বার্তা সম্পাদক রুবাইত হাসান

Exif_JPEG_420

Exif_JPEG_420

শুক্রবার সকাল সাড়ে ১১টায় হামলার শিকার হয়েছেন। রুবাইদ হাসান জানান, নজিপুর সদরের ডিগ্রী কলেজের পেছনে একটি ম্যাসে অবস্থান করছেন তিনি। এখানে আসার পর থেকেই তিনি লক্ষ্য করছেন কিছু স্থানীয় যুবকরা গাঁজা খাওয়া থেকে শুরু করে নামাজের সময় মসজিদের পাশে চিল্লাপাল্লা সহ বিভিন্ন ভাবে পরিবেশ দূষন করে আসছে একজন সচেতন মানুষ হিসেবে বিষয়টি তার নজরে আসলে তিনি এসব না করতে বারণ করেন। এ বিষয়টি এখানেই শেষ হবার কথা ছিল কিন্তু তারা এ আক্রোশ থেকে গত বৃহস্পতিবারের একটি তুচ্ছ ঘটনাকে ইস্যু করে তার উপর পরিকল্পিতভাবে হামলা করেন। ঘটনাটি ছিল এই রকম, পরীক্ষার শেষে পরীক্ষা কক্ষের বাইরে কেন্দ্রের ভিতরে তার এক সহপাঠী অবস্থান করছিল। ঐ দিক দিয়ে একটি মেয়ে হেঁটে যায়, নাম তামান্না। মেয়েটি দিকে তাকাতেই কিছুক্ষণ বাদে ঐ সার্কেলের ছেলেপেলে এসে তার সহপাঠীকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও প্রাণ নাশের হুকমি দেয়। রুবাইত ঐ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন না। কিছুক্ষণ পরে তিনি বিষয়টি জানতে পারেন। রুবাইত ওখানে উপস্থিত না থাকার কারনে এ বিষয়টির সঠিক তথ্য জানার জন্য মেয়েটি প্রাইভেট সেন্টারের টিচার রমজানের সাথে যোগাযোগ করেন এবং এটা জানার চেষ্টা করছিলেন যে, মেয়েটিকে তার সহপাঠী কি এমন বলেছে যে, তার সহপাঠীকে এভাবে চার্জ করা হলো। টিচার রমজান রুবাইতের দুর সম্পর্কের নানা। তিনি নিজে এই বিষয়টি দেখার কথা বললে তিনি ঐ স্থান ত্যাগ করেন। শুক্রবার সকালে ডে শিফ্ট-এর পরীক্ষা শেষের পর রুবাইত ম্যাসে এসে কাপড় বদলানোর সময় ঐ সার্কেল আবার এসে বিষয়টি প্রাইভেট টিচারকে জানানোর জন্য অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ, অযথা ফোন কেড়ে নেবার চেষ্টা প্রান নাশের হুমকি ও শেষে হামলা করে চলে যায়। উক্ত সময় ম্যাসের সদস্য সংখ্যা তাদের লঘু হওয়ায় উপস্থিতরা তাদের উপর চড়াও হতে পারেনি। এরপরই রুবাইত থানায় ডিউটিরত অফিসার ও থানা ইনচার্জ আজিমুদ্দিনের কাছে বিষয়টি মৌখিক ভাবে অবগত করে চিকিৎসার জন্য উপজেলা হাসপাতালে চলে যায়। প্রাথমিক চিকিৎসায় তার কপালে একটি সেলাইও করা হয়। ভর্তির কথা থাকলেও আগামী রবিবার রসায়ন দ্বিতীয় পাঠ পরীক্ষা থাকায় তিনি হাসপাতালে ভর্তি হতে পারেননি। হামলা করেছে নজিপুর কলেজ পাড়ার রিয়াদ (তামান্নার প্রেমিক), সবুজ ও তাদের সঙ্গীরা । শনিবার এ বিষয়ে থানায় একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। বিকেলের দিকে রাস্তায় পেয়ে ঐ সার্কেলের একজন দ্বিতীয় বার হুমকি দেয় এছাড়া আরো এক ঘন্টা নাগাদ পর ফোনে এ বিষয়ে কোন জায়গায় জানাজানি বা না এগোনোর জন্য তাকে ফোনে হুমকি দেওয়া হয়। ফোনে আলাপ কালের শেষ কিছু কথা তার ফোনে রেকর্ড থেকে যায়। এ বিষয়ে উপজেলা ও জেলা পর্যায়ের বিভিন্ন পত্রিকার সাংবাদিকগণ ও সচেতন মহল বিশেষ ভাবে তীব্র নিন্দা ও হামলাকারীদের যতদ্রুত সম্ভব এ বিষয়ে তাদের যথাযথ ব্যবস্থা নেবার জন্য প্রশাসনের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষন করেন। জনাব মোজাম্মেল হক বিপিএম,পিপিএম পুলিশ সুপার, নওগাঁ বলেন Liable criminal Shall be punished within Shortest possible of time.






মন্তব্য চালু নেই