মেইন ম্যেনু

সাংবাদিক রুবাইত হাসানের উপর হামলাসহ প্রাণ নাশের হুমকি

প্রশাসনের অপশাসন। সাংবাদিকের উপরে এভাবে নির্যাতন চলবে আরো কত দিন? শুক্রবার সান্তাহার রেলওয়ে জংশনে সান্তাহার থেকে ফুলবাড়ী আসার জন্য জংশন যাত্রী ছাওনীতে অবস্থান করছিলেন নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি, দৈনিক বজ্রকন্ঠের বিশেষ প্রতিবেদক ও বাংলাদেশ কবি পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-প্রচার সম্পাদক রুবাইত হাসান।

দুপুর দেড়টার দিকে দিনাজপুর থেকে ছেড়ে ঢাকা অগ্রগামী ট্রেন দ্রুতযান এক্সপ্রেস তখন সান্তাহার জংশনে। যাত্রীর উপচে পড়া ভিড়ে ছাদের উপরেও দেখা গেছে পিঁপিলিকা ভাসার মতো যাত্রীর অবস্থান। সিড়ি বেয়ে যাত্রী ছাউনীতে উঠে এলেন সান্তাহার রেলওয়ে থানার পুলিশ আক্তার ঙ+। এসেই বলছেন এ তোরা কে কে ঢাকায় যাবি তারা আয়? তাদের কাছে ডেকে নিয়ে ৩০০-৫০০ টাকা হাতে নিয়ে ছাদে নামায়ে দিচ্ছেন আক্তার।

সঙ্গে ছিল একজন পোশাকহীন অচেনা ব্যক্তি ও আরো এক সহযোগী। এমন সময় রুবাইত বিষয়টি দেখতে পেয়ে ফোন ক্যামেরায় টাকা লেনদেনের সময় ফটো শুট করতে গেলে ঐ সময় অন্য সহযোগী বলে উঠে এই তুই ছবি তুলছেসিস ক্যান? পুলিশ আক্তার দেখতে পেয়ে ফোন ফেড়ে নেয়ার চেষ্টা করলে রুবাইত হাত থেকে ফোনটি টেনে নেয় এবং সঙ্গে রুবাইতকে এক চড়মেরে বসে পুলিশ আক্তার। প্রশ্ন করে এই তুই ফটো তুলতেছিলি কেন? রুবাইত বলে উঠে আমি রিপোর্টটার এবং আক্তারকে আইডি কার্ড দেখায়। আক্তার আইডি কার্ড দেখার পর হাতে ধরিয়ে দিয়ে বলে ধূর মিয়া ফট এখান থেকে।

যে ব্যক্তিগুলো ঘটনা দেখছিল তারা সবাই ছিল যাত্রী বলে তাদের সাক্ষী হিসাবে প্রস্তুত করতে পারেনি রুবাইত। এদিকে পার্সেল অফিস, রেলওয়ে থানা, রেলওয়ে মসজিদ ষ্টেশন মাষ্টারের অফিস কোথাও খোঁজ মিলেনি সান্তাহার রেলওয়ে থানা ইনচার্জের।

বিষয়টি নওগাঁ মডেল প্রেসক্লাবের সভাপতি ও আরটিভির নওগাঁ প্রতিনিধি এম আর রকিকে রুবাইত ফাঁকা স্থানে এসে ফোন করে জানানোর সময় পুলিশ আক্তার টের পেয়ে সেখানে উপস্থিত হয়ে অন্য হাতে থাকা (ফটো তোলা) ফোনটি কেড়ে নেয়। অন্যদিকে প্রায় সেই সময় রুপসা এক্সপ্রেস খুলনা থেকে সান্তাহার পৌছিলে।

রুবাইত রুপসা এক্সপ্রেসে ফুলবাড়ী পৌছায়। কথা রয়েছে আগামী সপ্তাহে দিনাজপুর থেকে নওগাঁ ফিরেই এ বিষয়ে থানায় জিডি করার ও প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনের। উক্ত কর্মকান্ডের জন্য বিচার ও প্রতিকার চেয়ে পুলিশ আক্তারের কঠিনতর শাস্তিমূলক ব্যবস্থা পূর্বক সাংবাদিক রুবাইত হাসান রেলওয়ে মন্ত্রনালয় ও প্রশাসনের বিশেষভাবে দৃষ্টি আকর্ষন করছেন।






মন্তব্য চালু নেই