মেইন ম্যেনু

সাংসদদের ‘চোর’ বলে ‘ক্ষমা’ চাইলেন ইনু

সংসদ সদস্যরা টেস্ট রিলিফ বা টিআর প্রকল্পের গম চুরি করেন-এমন মন্তব্য করায় মন্ত্রিসভার বৈঠকে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু ক্ষমা চেয়েছেন বলে একাধিক মন্ত্রী নিশ্চিত করেছেন।

গত সোমবার রাজধানীতে এক আলোচনায় ইনু বলেন, এমপিরা টিআর বরাদ্দের অর্ধেক গত চুরি করেন। পরে এই বক্তব্য দেয়ায় রাতেই দুঃখ প্রকাশ করে বিবৃতি দেন ইনু। বলেন, তিনি নির্দিষ্ট কাউকে উদ্দেশ্য করে কথাটি বলেননি। অতীতের ধারাবাহিকতা বোঝাতে চেয়েছিলেন।

সোমবার দুপুরে সচিবালয়ে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে তথ্যমন্ত্রীর এই বক্তব্য উঠে আসে। দুইজন মন্ত্রী জানান, তথ্যমন্ত্রীর বক্তব্যে নাখোশ হয়েছেন খোদ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই ধরনের বক্তব্য দেয়ার ক্ষেত্রে সবাইকে সতর্ক হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘উনি (ইনু) সবাইকে চোর বানিয়েছেন। সবাই খেলে উনিও খেয়েছেন।’

একজন মন্ত্রী নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, মন্ত্রিসভার বৈঠকে একজন সদস্য বলেন, ‘আমরা এক ছটাকও টিআর-কাবিখার গম খাই না। এটা উনি বলতে পারেন না।’ জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমি খালেদা জিয়া ও তারেক সম্পর্কে বলতে গিয়ে ওই কথা বেখেয়ালে বলে ফেলেছি।’

সঙ্গে সঙ্গে মন্ত্রিপরিষদের আরেক সদস্য বলেন, ‘কিসের বেখেয়াল? আপনি এটা বুঝে-শুনেই বলেছেন।’ এর পর ‘সরি’ বলেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। বলেন, ‘আমি ক্ষমা চাই’।

একজন মন্ত্রী নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ‘তথ্যমন্ত্রী বৈঠকে বলেছেন, আমি জানতাম এই ধরনের কথা হবে। তাই আগেভাগেই বিবৃতি দিয়ে দুঃখ প্রকাশ করেছি।’

তবে এসব বিষয়ে তথ্যমন্ত্রীর কোনও বক্তব্য জানা যায়নি। তার ব্যক্তিগত মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি তা কেটে দেন।

পরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আপনারা দুর্নীতির কথা বললে বিএনপির আমলের দুর্নীতির কথা বলবেন। এখন দুর্নীতির কথা বললে সেটা সরকারের বিরুদ্ধেই যায়।’






মন্তব্য চালু নেই