মেইন ম্যেনু

সাইনুসাইটিসের সমস্যা থেকে মুক্তির সহজ উপায়

আমাদের চোখ,নাক ও গালের হাড় গুলোর মাঝামাঝি একটি ছোট্ট গর্ত বা ফাঁপা পকেটের মত পর্দাকে সাইনাস বলে। সাইনাস মিউকাস উৎপন্ন করে। আমাদের নাক, গলা ও ফুসফুসের ভেতরে যাতে জীবাণু প্রবেশ করতে না পারে সেজন্য মিউকাস ছাঁকনির ন্যায় কাজ করে। কখনো কখনো এই সাইনাস ও ব্যাকটেরিয়ার আক্রমণে অবরুদ্ধ ও উত্তপ্ত হয়ে যায়। যদি মিউকাস নিঃসৃত হতে না পারে তাহলে এগুলো জমা হয়ে তীব্র ব্যথা সৃষ্টি করে ও ফুলে যায়। এর ফলে ঠান্ডা, জ্বর, অ্যালার্জি, স্ট্রেস, ইমিউনিটি কমে যাওয়া এবং দাঁতের সমস্যা হতে পারে। সাইনাস ইনফেকশন দুই ধরণের হয়- আ্যকিউট সাইনুসাইটিস ও ক্রনিক সাইনুসাইটিস। অ্যাকিউট সাইনুসাইটিস সাধারণত ৪ সপ্তাহ থাকে, আর ক্রনিক সাইনুসাইটিস এক মাস থেকে এক বছর পর্যন্ত থাকতে পারে। অ্যালার্জি,নাকের সমস্যা ও সিস্টিক ফাইব্রোসিস এর কারণেও অ্যাকিউট সাইনুসাইটিস ও ক্রনিক সাইনুসাইটিস হতে পারে। আজ আসুন আমরা জেনে নেই সাইনুসাইটিসের যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পাওয়ার কিছু সহজ ও ঘরোয়া উপায়।

১। হাইড্রেটেড থাকুন

প্রচুর পানি,জুস,গরম স্যুপ ও গরম চা পান করুন। এতে মিউকাস পাতলা হয়ে বের হয়ে আসবে সাইনুসাইটিসের যন্ত্রণা কমাবে। অ্যালকোহল, ক্যাফেইন, চিনি যুক্ত পানীয় এবং ধূমপান বর্জন করুন।

২। নাসিকা পথ পরিষ্কার করুন

কারলটসভিলের ভার্জিনিয়া ইউনিভার্সিটির রাইনোলজি এন্ড এন্ডোস্কপিক সাইনাস সার্জারির এসোসিয়েট প্রফেসর, এমডি, স্পেন্সার সি প্যানি বলেন- ‘সাইনাসের ব্যাথা কমানোর জন্য কোন পদ্ধতিটি বেশি কার্যকরী তা নিয়ে বিতর্ক আছে। কিন্তু স্যালাইন স্প্রে এবং নেটি পট দিয়ে নাক ধোয়ার পদ্ধতিটির কার্যকারিতা সন্দেহাতীত’। ডাক্তার প্যানি আরো বলেন- ‘সাইনুসাইটিস থেকে আত্মরক্ষার প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে স্যালাইন দিয়ে নাক ধোয়া পরীক্ষিত ও কার্যকরী পদ্ধতি’। প্যানির মতে,যদি আপনার সাইনুসাইটিস এর সমস্যা থাকে তাহলে প্রতিদিন স্যালাইন দ্রবণ নিয়ে নেটি পট বা অন্য কিছু দিয়ে নাক ধোয়ার জন্য ব্যাবহার করুন। এতে সাইনাস সিক্ত থাকবে এবং দ্বিগুণ হয়ে ঠাণ্ডা বা অ্যালার্জির বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে পারবে।এর জন্য দুই গ্লাস পানিতে ১ টেবিল চামুচ লবণ মিশিয়ে গরম করুন।যখন পানি মোটামুটি ঠান্ডা হয়ে আসবে তখন একটি সরু মুখের পাত্রে মিশ্রণটি নিন।এবার পাত্রের সরু মুখটি দিয়ে নাকের এক ছিদ্র দিয়ে পানি ঢুকান যাতে নাকের অপর ছিদ্র দিয়ে পানি বের হয়ে যেতে পারে।সাবধানে করতে হবে যাতে গলার ভিতরে পানি চলে না যায়।

৩। আপেল সাইডার ভিনেগার

২-৩ চামচ আপেল সিডার ভিনেগার গরম পানি বা চা এর সাথে মিশিয়ে দিনে ৩ বার পান করলে জমাট বাঁধা মিউকাস ও রক্ত বের হয়ে আসবে সাইনাসের চাপ কমবে।

৪। হলুদ ও আদা

গরম চায়ে হলুদ ও আদা মিশিয়ে পান করলে সাইনাসের চাপ কমবে ও নাসিকা পথ পরিষ্কার হবে।

৫। গরম সেঁক নিন

যদি সাইনাসের ব্যথা বেশি হয় ও ফুলে যায় তাহলে একটি মোটা কাপড় হালকা গরম করে আক্রান্ত স্থানে চেপে ধরে রাখুন, এতে আরাম পাবেন। এছাড়া আপনার ঘাড় থেকে মাথা পর্যন্ত একটি গরম কাপড় দিয়ে ঢেকে রাখুন, ঠান্ডা বাতাস যেন না লাগে।

সাইনাসের ব্যাথা তাৎক্ষণিক ভাবে দূর করার জন্য মুখে ২মিনিট ম্যাসাজ করে নিতে পারেন। গরম ভাপ নিলেও নাক পরিষ্কার হবে ও সাইনাসের ব্যাথা কমবে। গরম পানিতে লবণ মিশিয়ে গারগল করুন। ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবার গ্রহণ করুন।আপনার ঘর ধুলাবালি মুক্ত রাখুন। ঘরের মধ্যে পোষা প্রাণী না রাখা ভালো।বাহিরে যাওয়ার সময় স্কার্ফ ও মাস্ক ব্যবহার করুন। যেসব খাবারে অ্যালার্জি হয় সেগুলো বাদ দিন।

লেখক-সাবেরা খাতুন






মন্তব্য চালু নেই