মেইন ম্যেনু

সাকা চৌধুরী যে কারণে কখনো ফেল করেননি

বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরীর মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে। গতকাল রাত ১২টা ৫৫ মিনিটে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে ফাঁসির দড়িতে ঝুলিয়ে তাদের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়। ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার জাহাঙ্গীর কবির রাত ১টা ৫৪ মিনিটে কারাগার থেকে বের হয়ে সাংবাদিকদের আনুষ্ঠানিকভাবে এ তথ্য জানান।

সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরি ছিলেন বাংলাদেশী রাজনীতিবিদ এবং জাতীয় সংসদের চট্টগ্রাম-২ আসন থেকে ছয় বার নির্বাচিত সংসদ সদস্য। ফাঁসির আগ পর্যন্ত তিনি বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ছিলেন। সাকা চৌধুরি তার জীবনে সংসদ নির্বাচনে কখনো ফেল করেন নি।

এমনকি ২০০৮ সালের সংসদ নির্বাচনে বিএনপির যখন ভরাডুবি হয়েছিল তখনও তিনি ফেল করেননি। মানবতাবিরোধী অপরাধে তিনি দোষি সাব্যস্ত হয়েছেন। অর্থ্যাৎ তিনি রাজাকার নামে এখন প্রমানিত। কিন্তু সাকা রাজাকার হওয়ার পরেও চট্টগ্রামবাসী কেন তাকে বার বার নির্বাচিত করে সংসদে পাঠিয়েছে?

২০০৯ সালে চ্যানেল আইয়ের জনপ্রিয় টক শো ‘তৃতীয় মাত্রা’ ঠিক এই প্রশ্নটিই সাকাকে করেছিলেন অনুষ্ঠানটির উপস্থাপক জিল্লুর রহমান। জবাবে সাকা বলেছিলেন, চট্টগ্রামবাসী আমাকে কখনোই পাকিস্তানি চর কিংবা রাজাকার ভাবে নি। তারা আমাকে অনেক ভালোবাসে।

তারা ভালোবাসে বলেই আমাকে বারবার সংসদে পাঠিয়েছে। কিন্তু সাকার বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে যে, চট্টগ্রামে তার নির্বাচনী এলাকায় যে সংখ্যালঘু সম্প্রদায় বাস করেন, সাকা চৌধুরী তাদের কাছ থেকে বরাবরি হুমকি দিয়ে জোর করে ভোট আদায় করে থাকেন।

এমন প্রশ্নের জবাবে সাকা চৌধুরি বলেন, আসলে আমাকে আমার নির্বাচনী এলাকার মানুষ আমাকে খুব ভালোবাসে। যে ভালোবাসাটা আমার প্রতিদ্বন্দ্বী রাজনৈতিক দল পছন্দ করে না।

মূলত সে কারণে আমার প্রতিপক্ষের রাজনৈতিক নেতারা আমার নামে এই ধরনের অপপ্রচার চালিয়ে আসছে। তবে তারা অপপ্রচার চালালেও আজ পর্যন্ত সফল হয়নি। সূত্র: চ্যানেল আই






মন্তব্য চালু নেই