মেইন ম্যেনু

সাকার সাক্ষা‍ৎ পেতে কারাফটকে পরিবার ও ২ আইনজীবী

একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাউদ্দিন কাদের (সাকা) চৌধুরীর পরিবারের কয়েক সদস্য ও তার আইনজীবী কেন্দ্রীয় কারাগারে পৌঁছেছেন। কারাগারের ভেতরে অনুসন্ধান রুমে অপেক্ষা করছেন।

শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে তারা কারাগারের সামনে যান। পরিবারের সদস্যদের মধ্যে রয়েছেন সাকার দুই ছেলে হুম্মাম কাদের চৌধুরী ও ফাইয়াজ কাদের চৌধুরী। তাদের সঙ্গে রয়েছেন দুই আইনজীবী অ্যাডভোকেট হুজ্জাতুল ইসলাম খান আল ফেসানী ও অ্যাডভোকেট আকবর ইউসুফ।

তবে কেন তারা এখন সেখানে গেলেন সে বিষয়টি এখনো স্পষ্ট নয়।

সর্বশেষ খবর অনুযায়ী নিজের অপরাধের জন্য সাকা রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা চাইবেন কি না তা তার কাছে জানতে চেয়েছে কারা কর্তৃপক্ষ। এর জবাবে সাকার পক্ষ থেকে সরাসরি হ্যাঁ বা না কোনো জবাব এখনো আসেনি। তিনি আইনজীবীর সঙ্গে দেখা করতে চাইলেও সিনিয়র জেলসুপার তাকে জানিয়ে দিয়েছেন কারাবিধি অনুযায়ী এখন আর আইনজীবীদের সঙ্গে তার দেখা করার কোনো সুযোগ নেই।

মৃত্যুদণ্ড থেকে বাঁচতে মানবতাবিরোধী অপরাধী সাকার সামনে এখন রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষা চাওয়া ছাড়া নেয়ার মতো আর কোনো পদক্ষেপ নেই।

সাকার মতোই জামায়াত নেতা মুজাহিদকেও প্রাণভিক্ষার বিষয়ে জানতে চাওয়া হয়েছে। উত্তর জানাতে তিনিও সময় নিচ্ছেন।

তারা যদি রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা চান এবং চাওয়ার পর যদি ক্ষমা না পান তবে আইন অনুযায়ী সরকারের সিদ্ধান্ত অনুসারে যেকোনো সময় দুই যুদ্ধাপরাধীর ফাঁসির রায় কার্যকর করতে পারবে কারা কর্তৃপক্ষ।

বুধবার সাকা ও মুজাহিদের রিভিউ আবেদন খারিজ করে দেন আপিল বিভাগ। ওই রায়ের মধ্যে দিয়ে তাদের আইনি লড়াই শেষ হয়।

[ সাকার ছেলে হুম্মাম কাদের চৌধুরী, ফাইল ছবি ]






মন্তব্য চালু নেই