মেইন ম্যেনু

সাকিবের ফেরার দিনে জিতল কলকাতা

দুই ম্যাচ উপেক্ষিত থেকে বুধবার আবার সুযোগ পেয়েছিলেন সাকিব আল হাসান। রবীন উথাপ্পা ও গৌতম গম্ভীরের অসাধারণ ব্যাটিং দৃঢ়তার কারণে ব্যাট করার সুযোগ পাননি বাংলাদেশের এই অলরাউন্ডার।

অবশ্য বল করার সুযোগ পেয়েছিলেন। ৩ ওভার হাত ঘুরিয়ে ২১ রান দিয়ে অবশ্য কোনো উইকেটের সন্ধান পাননি। পাবেন কী করে? দারুণ ছন্দে থাকা আন্দ্রে রাসেল যে একাই নিয়েছেন ৪ উইকেট।

তবে সাকিব আল হাসান দলে ফেরার দিয়ে জয় পেয়েছে কলকাতা নাইট রাইডার্স। কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবকে এদিন তারা হারিয়েছে ৭ রানের ব্যবধানে। এ জয়ের ফলে ৯ ম্যাচের ৬টিতে জিতে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে অবস্থান নিয়েছে কলকাতা। অন্যদিকে ৮ ম্যাচের ৬টিতে হেরে পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে অবস্থান নিয়েছে পাঞ্জাব।

বুধবার ঘরের মাঠে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে ১০১ রান তোলেন উথাপ্পা ও গম্ভীর। এরপর ব্যক্তিগত ৫৪ রানে কলকাতার অধিনায়ক রান আউটে কাটা পড়েন। তার ৫৪ রানের ইনিংসে ৬টি চারের মার ও ১টি ছক্কার মার ছিল। এরপর দলীয় ১৩৭ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ৭০ রানে রান আউট হন উথাপ্পাও। ইউসুফ পাঠান (১৯*) ও আন্দ্রে রাসেল (১৬) মিলে দলীয় স্কোরকে ১৬৪ পর্যন্ত টেনে নেন। শেষ বলে অবশ্য রান আউট হন রাসেল। কিন্তু তাতে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে ১৬৪ রান সংগ্রহ করতে সমস্যা হয়নি কলকাতার।

১৬৫ রানের জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ৫৩ রানেই প্রথম সারির চার-চারজন ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে বসে পাঞ্জাব। সেই ধাক্কা সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। তিনি ৪২ বলে ৬ চার ও ৪ ছক্কায় ৬৮ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন। কিন্তু সেটি দলের জয়ের জন্য যথেষ্ট ছিল না। কারণ, তার সতীর্থদের কেউ ২৪ রানের বেশি করতে পারেননি।

ফলে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৫৭ রানে থামে পাঞ্জাব। আর কলকাতা জয় পায় ৭ রানে।

বল হাতে আন্দ্রে রাসেল ৪ ওভারে ২০ রান দিয়ে নেন ৪ উইকেট। চাওলা ৪ ওভারে ২৭ রান দিয়ে নেন ২ উইকেট। আর মরনে মরকেল ৪ ওভারে ২৭ রান দিয়ে নেন ১ উইকেট।

ম্যাচসেরা নির্বাচিত হন আন্দ্রে রাসেল।






মন্তব্য চালু নেই