মেইন ম্যেনু

সাকিব ছক্কা মারলে অভিনন্দিত হন বীরেন!

একদিনের ম্যাচ ও টি-টোয়েন্টি উভয় ফরম্যাটে বিশ্বসেরা বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান ছক্কা মারলে অভিনন্দিত হন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী ড. বীরেন শিকদার।

রোববার (২৪ জানুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরে ওয়েব ফাউন্ডেশন আয়োজিত এক সেমিনারে প্রতিমন্ত্রী বীরেন শিকদার এ কথা জানান।

‘জাতীয় যুবনীতি ও পদক্ষেপ এবং যুব অধিকার অ্যাসেম্বলি বিষয়ে উপস্থাপনা ও আলোচনা’ শীর্ষক ওই সেমিনারে তিনি প্রধান অতিথি ছিলেন।

নিজের ‘বিশেষ কৃতিত্ব নেই’ উল্ল্যেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘তবে সাকিব আল হাসান ছক্কা মারলে সবাই আমাকে অভিনন্দন জানায়।’

নিজের সাফল্যের কথা উল্লেখ করে বীরেন শিকদার বলেন, ‘এই সাকিব, সৌম্য সরকার ও মুস্তাফিজকে অজপাড়া গ্রাম থেকে তুলে নিয়ে এনেছি, এটা আমার সফলতা।’

খুব শিগগিরই যুবকদের জন্য ডিজিটাল নীতিমালা প্রণয়ন করা হবে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘বেকারত্ব দূর করতে ইন্টারমিডিয়েটের পর সব অনার্স করে দেয়া উচিত। পাস কোর্সের ব্যবস্থা রাখা ঠিক না।’

কারণ হিসেবে ড. বীরেন শিকদার বলেন, ‘এমএ পাশ করার পরেও চাকরি পাওয়া যাচ্ছে না। সে জন্য কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা দরকার। আমরা যে অপরিকল্পিতভাবে কাজ করি সে জন্যই এগিয়ে যাওয়া যাচ্ছে না।’

যুব সমাজকে সম্পদ উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, ‘আমরা এই মুহূর্তে একটি সৌভাগ্যবান জাতি। আমাদের মোট জনসংখ্যার তিনের এক অংশই যুবক। এই সুযোগ আমাদের কাজে লাগাতে হবে।’

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানের সিনিয়ন রিসার্চ ফেলো ড. নাজনীন আহমেদ ও কাউন্টার পার্ট ইন্টারন্যাশনালের চিফ অব পার্টি রাকিব আহসান।

অ্যাসেম্বলি বিষয়ে উপস্থাপনা করেন ওয়েভ ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক মহসিন আলী, জাতীয় যুবনীতি বিষয়ে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশাসন বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. আখতার হোসেন।






মন্তব্য চালু নেই