মেইন ম্যেনু

‘সাকিব ছাড়াই আমরা শক্তিশালী’

চার মৌসুম ধরে শিরোপাহীন সময় কাটাচ্ছে দেশের ঐতিহ্যবাহী ক্লাব আবাহনী। ২০১০-১১ সালের পর ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগের শিরোপা জেতা হয়নি আবাহনীর। এবার সে লক্ষ্যে বেশ শক্ত দল গড়েছে আবাহনী। কোচ হিসেবেও পেয়েছে প্রিমিয়ার লিগের সফল কোচদের মধ্যে অন্যতম খালেদ মাহমুদ সুজনকে।

তাসকিন-সাকিব-তামিম-লিটনকে নিয়ে গড়া আবাহনী দলটা বেশ শক্তিশালী। কিন্তু মৌসুমের প্রথম দিকে সাকিবকে পাচ্ছে না আবাহনী। আইপিএল খেলতে যাওয়ার কারণে তাকে ছাড়াই মাঠে নামতে হবে আবাহনীকে। কিন্তু তাকে ছাড়াও আবাহনী দল অনেক শক্তিশালী বলে মনে করেন খালেদ মাহমুদ সুজন। তিনি বলেন, ‘আমি জানি না কবে থেকে সাকিব আমাদের হয়ে খেলতে পারবে। কিন্তু সাকিব ছাড়াও আমরা অনেক শক্তিশালী। আমাদের তামিম, মোসাদ্দেক, লিটন, শান্তর মতো ক্রিকেটার রয়েছেন। আমাদের তরুণ ক্রিকেটাররা অনেক মেধাবী, যা দলের জন্য যথেষ্ট।’

শেষবার এই সুজনের হাত ধরেই প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা জিতেছিল আবাহনী। তার হাত ধরে এবারও শিরোপা ঘরে তুলতে প্রত্যয়ী দলটি। সুজন বলেন, ‘কোনো সন্দেহ নেই কাগজে কলমে আমরা সেরা দল। কিন্তু ক্রিকেটটা মাঠে খেলতে হবে। যে কারণেই আপনি আপনার সফলতার ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী হতে পারবেন না। আপনার লক্ষ্য পূরণের জন্য সেরা ক্রিকেটটাই খেলতে হবে আপনাকে। একটা কথা সোজাসুজি বলতে চাই, আমরা শিরোপা জয়ের জন্যই মাঠে নামবো।’

আজ প্রথমবারের মতো মিরপুর একাডেমীতে অনুশীলনে নামে আবাহনী দল। দলের অনেক ক্রিকেটারই প্রথম দিন আসেননি। সুজন বলেন, ‘আজ আমাদের প্রথম অনুশীলন ছিল। কিন্তু সবাই আসেনি। তামিম উমরাহ করতে গেছে এবং মোসাদ্দকের মা অসুস্থ। সে ১৭ তারিখে দলের সঙ্গে যোগ দেবে।’

দলের বোলিং নিয়ে বেশ আশাবাদী এই কোচ। তিনি বলেন, ‘আমাদের পেস আক্রমণভাগ অনেক শক্তিশালী। দলে তাসকিন, তাপস বৈশ্য এবং রাজুর মতো পেস বোলার রয়েছে। সাকলাইন সজীব, জুবায়ের লিখন এবং অমিতাভ কুমারের মতো অভিজ্ঞ স্পিনার রয়েছেন, যারা দীর্ঘদিন ধরে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ খেলে আসছেন।’

আবাহনীর হয়ে যারা খেলেবেন: লিটন কুমার দাস, মোসাদ্দেক হোসেন, তামিম ইকবাল, সাকিব আল হাসান, নাজমুল হোসেন শান্ত, তাসকিন আহমেদ, সাকলাইন সজিব, আবুল হাসান রাজু, অভিষেক মিত্র, জুবায়ের হোসেন লিখন, তাপস বৈশ্য, অমিতাভ কুমার, আবু বকর সিদ্দিক।






মন্তব্য চালু নেই