মেইন ম্যেনু

সাক্ষরতা প্রকল্পের আওতায় আসছে ৪৫ লাখ মানুষ

প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান জানিয়েছেন, দেশের ৬৪ জেলার ৪৫ লাখ বয়স্ক নিরক্ষর ব্যক্তিকে সাক্ষরজ্ঞান দেওয়ার একটি কর্মসূচি হাতে নিয়েছে সরকার। ‘মৌলিক সাক্ষরতা’ প্রকল্পের মাধ্যমে ১৫ থেকে ৪৫ বছর বয়সী এসব নিরক্ষর ব্যক্তিকে সাক্ষরজ্ঞান দেওয়া হবে। সরকারের সম্পূর্ণ নিজস্ব অর্থায়নে উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরো এ কর্মসূচি বাস্তবায়ন করবে।

রোববার দুপুরে সচিবালয়ে নিজ মন্ত্রণালয়ের সম্মেলনকক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘সরকার নিরক্ষর জনগোষ্ঠীকে সাক্ষর ও জীবন দক্ষতাভিত্তিক প্রশিক্ষণ প্রদানের পাশাপাশি আধুনিক ও কর্মমুখী শিক্ষায় শিক্ষিত দক্ষ মানবসম্পদ গড়ে তুলতে ব্যাপক কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে। এর ফলে শিক্ষাক্ষেত্রে ঝরে পড়ার হার ও বৈষম্য হ্রাস পেয়েছে। শিক্ষার গুণগতমান বৃদ্ধি পেয়েছে। আমরা দেশ থেকে নিরক্ষরতা দূর করতে বদ্ধপরিকর।’

মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী ৮ সেপ্টেম্বর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন। ওইদিন সকাল ৮টায় আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস উপলক্ষে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তন পর্যন্ত এক বর্ণাঢ্য র‌্যালির আয়োজন করা হবে। এ র‌্যালিতে শিক্ষক ও কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন।

মন্ত্রী বলেন, জাতীয় শিক্ষানীতি ও জাতীয় কর্মপরিকল্পনায় সরকার দেশ থেকে নিরক্ষরতা দূরীকরণের অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছে এবং এর পরিপ্রেক্ষিতে পরিকল্পনা ও ভিশন ২০২১-এ সরকার ২০২১ সালের মধ্যে দেশকে একটি মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করতে বদ্ধপরিকর।

তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকার ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উন্নত আয়ের দেশে পরিণত করার দৃঢ়প্রত্যয় ঘোষণা করেছে। এ জন্য দেশ থেকে নিরক্ষরতা দূরীকরণসহ চাহিদাভিত্তিক দক্ষতা উন্নয়নের প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে বিপুল জনগোষ্ঠীকে মানবসম্পদে পরিণত করার বিশেষ পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে সরকার।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন সাংসদ নজরুল ইসলাম বাবু ও প্রাথমিক ও গণশিক্ষাসচিব মেজবাহুল আলমসহ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা।






মন্তব্য চালু নেই