মেইন ম্যেনু

সাগরতীরে ভাসছে ভৌতিক নৌকা, ভিতরে মৃতদেহ

জাপানের সাগরতীরে বেশ কিছুদিন যাবত ধরে ঘটছে ভৌতিক কিছু ঘটনা। বিগত ২ মাসে জাপানের সাগরতীরে কমপক্ষে ৮টি কাঠের নৌকার সন্ধান পাওয়া গেছে এবং নৌকাতে মালামাল বলতে ছিল শুধু পঁচে যাওয়া মৃতদেহ। এ পর্যন্ত প্রায় ২০টি মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

জাপানের কোস্ট গার্ড সংবাদ মাধ্যম সিএনএনকে বলেছেন, এ পর্যন্ত যে ২০টি মৃতদেহ পাওয়া গেছে তার বেশিরভাগই পঁচে বিকৃত হয়ে গেছে, এমনকি কোন কোনটার কঙ্কাল পর্যন্ত বেরিয়ে পড়েছে। এছাড়া দুটো মৃতদেহ পাওয়া গেছে মস্তকবিহীন এবং একটি নৌকাতে ছিল শুধু ৬টি মাথার খুলি। প্রথম নৌকাটা পাওয়া গিয়েছিল অক্টোবর মাসে, তারপরে বাকি নৌকাগুলো পাওয়া যায় নভেম্বরের শেষদিকে।

কোস্ট গার্ডের সদস্যরা এখন এই ভৌতিক সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করছেন এবং ঠিক কোথা থেকে এই নৌকাগুলো আসছে সেটা খুঁজে বের করার চেষ্টা করছেন।

তবে তাদের সাম্ভাব্য ধারণা, নৌকাগুলো ভেসে আসছে উত্তর কোরিয়ার কোনো জাহাজ থেকে। এই রকম ধারণা করার ১ম কারণ হচ্ছে নৌকার খোলের গায়ে ছাপানো কোরিয়ান অক্ষর।

গত ২০ নভেম্বর জাপানের ওয়াজিমা শহরের নিকটবর্তী সাগরতীর থেকে ভাসমান অবস্থায় ৩টি নৌকা উদ্ধার করা হয়। এদের একটিতে পাওয়া যায় ১০টি গলিত মৃতদেহ এবং নৌকার খোলে পাওয়া যায় কোরিয়ান লেখার চিহ্ন। সেখানে লেখা ছিল ‘কোরিয়ান পিপলস আর্মি’। ‘কোরিয়ান পিপলস আর্মি’ হচ্ছে উত্তর কোরিয়ার সেনাবাহিনীর নাম।

২য় কারণ হচ্ছে একটি নৌকাতে একটা ছেড়া কাপড়ের টুকরো পাওয়া গেছে যেটা দেখে মনে হচ্ছে সেটা উত্তর কোরিয়ার জাতীয় পতাকার ছেড়া কোনো অংশ।

চাথাম হাউস পলিসি ইন্সিটিউটের এশিয়া প্রোগ্রামের প্রধান জন নিলসন রাইট নৌকার এই ছবি দেখে সিএনএনকে বলেছেন, এই নৌকাগুলো নিঃসন্দেহে উত্তর কোরিয়ার।

তিনি আরো বলেন, নিশ্চিত না হলেও এটা বলা যেতে পারে যে উত্তর কোরিয়া থেকে দুর্গম কোনো সমুদ্রপথ দিয়ে পালানোর সময় তারা মারা পড়েন। তবে প্রকৃত রহস্য উদ্ঘাটনে এখনো তদন্ত চলছে।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই