মেইন ম্যেনু

সাতক্ষীরার কলারোয়ায় আ.লীগের দু’ গ্রুপের সংঘর্ষ, ঘরবাড়ি ভাংচুর, আহত ৫

সাতক্ষীরার কলারোয়ায় ইউনিয়ন আ.লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে মহিলাসহ কয়েকজন আহত হয়েছে। এ ঘটনায় এক আ.লীগ নেতার বসতবাড়ি ও আসবাবপত্র ভাংচুর করেছে প্রতিপক্ষরা। জামায়াত-বিএনপির নাম লিস্ট করে থানা পুলিশকে দিয়ে হয়রানীর অভিযোগ এনে ইউনিয়ন আ.লীগের দু’গ্রুপেও ওই সংঘর্ষ হয় বলে স্থানীয়রা জানান।
রোববার সন্ধ্যায় উপজেলার চন্দনপুর ইউনিয়নের হিজলদী বাজারে এ ঘটনা ঘটে।
জানা গেছে, হিজলদী বাজারে স্থানীয় ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মনিরুল ইসলাম মনিকে উদ্দেশ্য করে ওয়ার্ড আ.লীগের সভাপতি আবুল হোসেনের ছেলে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আহাদ বলেন, আপনি সকল স্থানে বলে বেড়াচ্ছেন যে আবুল হোসেন, আহাদ, খোকা এলাকায় জামায়াত-বিএনপির লোকদের নাম লিস্ট করে থানা পুলিশ দিয়ে ধরিয়ে দিচ্ছে। এসময় মনি মেম্বর বলেন, কার সাথে বলেছি তুই তাকে ডেকে নিয়ে আয়। এ কথা বলাতে দুই জনের মধ্যে বিকবিতন্ডার একপর্যায়ে হাতা হাতি বেধে যায়।
পরে রাত ৯টার দিকে ইউপি সদস্য মনির নেতৃত্বে মিন্নু, মহিনুর, ফিরোজ, ওয়াজেদ, রবিউল, মিলন, নাজমুল, উজ্জল, কামাল, আরব বিল্লাহসহ ২৫/৩০জন দলবদ্ধ হয়ে ওয়ার্ড আ.লীগের সভাপতি আবুল হোসেনের বাড়ীতে হামলা করে। সন্ত্রাসীদের হামলায় ওয়ার্ড আ.লীগের সভাপতি আবুল হোসেন (৬৫), মাফুজা (৫০), ছাবিনা খাতুন (২২), রাশিদা (৪৫), লতা বেগম (৫০)সহ ৫জন আহত হয়।
গুরুতর আহত অবস্থায় ওয়ার্ড আ.লীগের সভাপতি আবুল হোসেনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
এদিকে ওয়ার্ড আ.লীগের সভাপতি আবুল হোসেনের পরিবারের অভিযোগ, সন্ত্রাসীরা হামলা করে ঘরের ভিতরে বিভিন্ন আসবাবপত্র, ২টি মোটরসাইকেল ভাংচুর, একটি বড় বাক্স ভেঙ্গে ৪ সেট স্বর্ণের গহনা লুট করে নিয়ে গেছে।
খবর পেয়ে কলারোয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে বলে জানা গেছে।






মন্তব্য চালু নেই