মেইন ম্যেনু

সাতক্ষীরায় মেলার নামে চলছে নগ্ন নৃত্য আর জুয়ার আসর

সাতক্ষীরার তালায় কবি সিকান্দার আবু জাফর মেলার নামে চলছে নগ্ন নৃত্য আর জমজমাট জুয়ার আসর। ফলে উঠতি তরুণরা বিপথগামী হচ্ছে। আর এ সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করছে আমজাদ হোসেন নামের এক জুয়ারি ও স্থানীয় সুবিধাবাদীরা।

সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক আবুল কাশেম মহিউদ্দীন গত ২৪ মার্চ তালার তেঁতুলিয়া গ্রামে কবির ৯৭তম জন্মবার্ষিকীতে এ মেলার উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনের পরদিন থেকেই লটারি আর পুতুল নাচের নামে চলছে জীবন্ত পুতুলের নগ্ন নৃত্য আর খোলামেলা জুয়ার আসর। বিষয়টি প্রশাসনকে অবহিত করা হলেও কার্যকর কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি বলেও অভিযোগ সুধীজনরা।

সরেজমিনে দেখা যায়, দিনের বেলায় মেলার কোনো তোড়জোড় থাকে না। সন্ধ্যা হতেই কার্যক্রম শুরু হয়। রাত যত গভীর হয় নৃত্যের নগ্নতা ততোই বাড়তে থাকে। যেখানে বাংলা সাহিত্যের কিংবদন্তী কবি সিকান্দার আবু জাফরের জন্ম বার্ষিকীতে আয়োজিত এ মেলায় তার স্মৃতি সংগ্রহশালা, জীবনী ও তার লেখা বিভিন্ন বই বা সাহিত্য থাকার কথা অথচ সেখানে বিন্দুমাত্র তার ছিটে ফোঁটাও নেই। ফলে ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছেন বিশিষ্টজনেরা।

অপরদিকে, ২০ টাকার লটারিতে গাড়ি, ফার্ণিচার, অলঙ্কার বহুবিধ প্রলোভনে জনসাধারণের পকেট খালি করছে একটি চক্র। লটারি, জুয়া আর জ্যন্ত পুতুল নাচের মাধ্যমে প্রতিদিন গ্রামের সাধারণ মানুষদের কাছ থেকে হাতিয়ে নেয়া হচ্ছে ত্রিশ লক্ষাধিক টাকা। চলছে মাদকসেবীদের রমরমা আড্ডা।

এসব অভিযোগের প্রেক্ষিতে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করলেও কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মাহবুবুর রহমান।

তবে আলোচিত জুয়ারি মেলার মাঠ মালিক আমজাদ হোসেন জানান, প্রশাসনকে ম্যানেজ করেই আমাদের এসব করতে হয়।

এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসক আবুল কাশেম মহিউদ্দীন জানান, নগ্ন নৃত্য আর জুয়ার বিষয়টি তার জানা নেই। তবে এ ধরনের কর্মকাণ্ড চললে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।






মন্তব্য চালু নেই