মেইন ম্যেনু

সাতক্ষীরায় ২শ’ ফুট বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে একটি গ্রাম ও দুই’শ বিঘা মৎস্য ঘের প্লাবিত

সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার চাকলায় কপোতাক্ষ নদের প্রায় ২’শ ফুট বেড়িবাঁধ প্রবল জোয়ারে ভেঙ্গে একটি গ্রাম ও দুই’শ বিঘা মৎস্য ঘের প্লাবিত হয়েছে। শনিবার রাত ১১টার দিকে উপজেলার প্রতাপনগর ইউনিয়নের চাকলা গ্রামে এ বেড়ি বাধ ভেঙ্গে যায়।

স্থানীয় চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে দুই শতাধিক এলাকাবাসীর স্বেচ্ছাশ্রমে বেড়ি বাধটি সংস্কার করা হলেও রাতে প্রবল জোয়ারে তা আবারও ভেঙ্গে গেছে। বাধ ভেঙ্গে যাওয়ার ফলে চাকলা গ্রামসহ নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হচ্ছে । একই সাথে প্রায় আড়াই’শ পরিবার পানি বন্দী হয়ে পড়েছে । পানিতে ভেসে গেছে দুই’শ বিঘা মৎস্য ঘের। বাধটি দ্রুত স্থায়ী ভাবে সংস্কার করা না হলে প্রতাপনগর ইউনিয়নের শূভাদ্রাকাটি, তালতলা, রুয়েরবিলসহ নতুন নতুন এলঅকা প্লাবিত হবে আশংকা করছেন স্থানীয়রা।

স্থানীয় বাসিন্দা আকবর ঢালী জানান,রাতে প্রবল জোয়ারে চাকলা গ্রামের কপোতাক্ষ নদের বেড়ি বাধ ভেঙ্গে নদীগর্ভে ধসে পড়ার পর স্থানীয়রা স্বেচ্ছাশ্রমে বাধটি সংস্কার করলেও সকালের জোয়ারে তার আবারও ভেঙ্গে যায়। এতে চাকলা গ্রামের নিন্মাঞ্চল ও ২’শ বিঘা মৎস্য ঘেরসহ নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হচ্ছে।

প্রতাপনগর ইউপি চেয়ারম্যান জাকির হোসেন ঘটনাস্থল থেকে জানান, কপোতাক্ষ নদের চাকলা পয়েন্টের বেড়িবাঁধ দীর্ঘদিন ধরে জরাজীর্ণ অবস্থায় ছিল। পানি উন্নয়ন বোর্ডকে বার বার বলা সত্ত্বেও তারা সংস্কারের উদ্যোগ না নেওয়ায় রাতে প্রায় ২শ ফুট এলাকা জুড়ে ভেঙ্গে নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যায়। তিনি জানান, সেখানে দুই শতাধিক এলাকাবাসীদের নিয়ে রিং বাধটি সকালের জোয়ারের আগে সংস্কার করা হলেও পরে জোয়ারের প্রবল চাপে তা আবারও ভেঙ্গে যায়। তিনি আরো জানান, রিং বাধটি সংস্কার করা না গেলে পরবর্তী জোয়ারে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হবে।






মন্তব্য চালু নেই