মেইন ম্যেনু

সাতসমুদ্রের ওপারে থাকলেও ছুঁতে পারবেন মনের মানুষকে!

ভালোবেসে দূরে থাকা বড় কষ্টকর৷ যে জনে প্রেমের এই ব্যাথা জানে, সে জনই মানে এই কথা৷ হালফিলে স্কাইপ, ভিডিও কলের জমানায় সেই আক্ষেপ কিছুটা মেটে বটে৷ কিন্তু সে তো কেবলই চোখের দেখা আর মুখে দু’টো কথা বলা৷ এতে কী আর প্রাণ জুড়ায়৷ লং ডিসট্যান্স রিলেশনশিপের এই জ্বালা কিছুটা নয় অনেকটাই মিটতে চলেছে৷ খবর সংবাদ প্রতিদিনের।

সাত সমুদ্র তেরো নদীর অন্যপ্রান্তে থেকেও ভালবাসার মানষটির সঙ্গে শুধু কথা বলেই কিংবা চোখে দেখেই ক্ষান্ত হতে হবে না৷ তাঁকে ছুঁয়েও দেখতে পারবেন৷ এই পদ্ধতি নাকি আবিষ্কার করে ফেলেছেন কানাডার সিমোন ফ্রেজার বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক কারমান নিউস্টেডার৷ এক বিশেষ প্রকারের দস্তানা আবিষ্কার করেছেন তিনি৷ যার মাধ্যমে ভিডিও চ্যাট করাকালীন আপনি সঙ্গীর হাত ছুঁতে পারবেন, তাঁর গালে হাত দিতে পারবেন, আবার আলিঙ্গনও করতে পারবেন৷ আর আপনার সঙ্গীও দিব্যি অনুভব করতে পারবেন আপনার ভালবাসার ছোঁয়া৷

বিশেষ এই দস্তানার নাম দেওয়া হয়েছে ফ্লেক্স-এন-ফ্লেক্স৷ এর মধ্যে থাকা সেন্সরগুলি মাইক্রো-কন্ট্রোলারের সঙ্গে অ্যাটাচ করা থাকে৷ ওয়াই-ফাই মডিউলে ব্যবহার করতে হয়৷ দস্তানার মধ্যে গলানো হাত নাড়ালেই সেন্সরগুলি অ্যাক্টিভ হয়ে ওঠে এবং ভালবাসার মধ্যে শারীরিক দূরত্বও ঘুচে যায়৷ তবে এখনও পরীক্ষা-নীরিক্ষার স্তরেই রয়েছে এই দস্তানা৷ সব দিক পরীক্ষা করেই ছাড়া হবে বাজারে৷






মন্তব্য চালু নেই