মেইন ম্যেনু

সাত বছরের শিশু, শিখিয়ে দিলেন মনুষ্যত্ব

সিডনীতে বসবাস করা ভারতীয় নাগরিক তাদের সাত বছর বয়সী সন্তানের মৃত্যুর পর তার শরীরের অঙ্গ দান করে দিয়েছেন। এই শিশু তার শরীরের অঙ্গ দিয়ে চারজন মানুষের প্রাণ রক্ষা করেছেন।

দিয়ান উদানি নামের এই সাত বছরের শিশু আরেকটি সাত বছরের শিশুকে নিজের হৃৎপিণ্ড দিয়ে জীবন রক্ষা করেছেন। গুরগাওয়ের ৭ বছরের সেই মেয়ের হৃৎপিণ্ড অকেজো হয়ে যাবার ফলে তার নিকট বেঁচে থাকার জন্য আর কিছুদিন আছে বলে জানানো হয়েছে। দেয়ানের হৃৎপিণ্ড সেই শিশুকে রক্ষা করেছে।

ডঃ ভিজে আগারওয়াল যে এই অপারেশন সম্পন্ন করেছেন তিনি বলেছেন, এভাবে একই বয়সের, ওজনের ও রক্তের মিল খুঁজে পাওয়া বিরল।

দেয়ান তার পরিবারের সাথে ও তার ৯ বছর বয়সী বোনের সাথে ভারতে ভ্রমণে এসেছিল। তারা বিমানবন্দরে যাবার পথে মাত্র দুই ঘণ্টা আগে দুর্ঘটনার শিকার হন।

দেয়ানের মাথায় হঠাৎ করে ব্যথার সৃষ্টি হয় কিছুদিন পূর্বে। পরবর্তীতে তাকে হাসপাতালে নেয়া হলে তার মস্তিষ্কে বিভিন্ন ব্লক দেখা যায়। জানুয়ারীর ২৭ তারিখে তার অপারেশন করা হয়। এতে করে যেন তার ব্রেনের চাপ কমে যায়।

কিন্তু অপারেশন সফল হবার পরও দেয়ান অচেতন থাকে। পরবর্তীতে পরীক্ষা করে দেখা যায়, তার মস্তিষ্ক কাজ করা বন্ধ করে দিয়েছে। অর্থাৎ ‘ক্লিনিক্যাল ডেড’।

দেয়ানের মা মিলি জানান, কিছুদিন পূর্বে দেয়ান তার বিদ্যালয়ে অঙ্গ দানের ব্যাপারে জেনেছেন। তাই সে বড় হয়ে আঙ্গ দান করতে আগ্রহী। তাই তার মৃত্যুর সময় দেয়ানের দুইটি কিডনি, লিভার ও হার্ট দান করে দেয়া হয়।-সূত্র: ইন্ডিয়া টাইম্‌স।






মন্তব্য চালু নেই