মেইন ম্যেনু

সানি লিওনের ধর্ম বিশ্বাস!

বলিউডের কিউটেস্ট জুটি বলা হয় ইন্দো-কানাডিয়ান বংশোদ্ভূত অভিনেত্রী সানি লিওন ও স্বামী মাইকেল ওয়েবারকে। এই জুটির দিকে তাকালে কখনো মনেই হবে না যে, তারা পর্নো ইন্ডাস্ট্রিতে এক সময় কাজ করে এসেছেন। অথচ ধর্মীয় রীতিনীতি মেনেই নাকি বিয়ে করেছেন ওয়েবার-সানি জুটি। শুধু তাই না, বিয়ের সময় ভারতীয় ঐতিহ্যও বজায় রেখেছিলেন তারা।

বলিউডের সফল স্বামী-স্ত্রী মাইকেল ওয়েবার ও সানি লিওন জুটি। যুক্তরাষ্ট্রে পর্নো ইন্ডাস্ট্রির সাথে তারা জড়িত থাকলেও ‘বিগ বস’ নামের একটি রিয়েলিটি শো’র মাধ্যমে পর্নো ছেড়ে বলিউডে আসন করে নেন সানি লিওন-ওয়েবার। ইতিমধ্যে অভিনয় দিয়ে বলিউডে নিজের সামর্থও জানান দিয়েছেন তিনি। সানি লিওন অভিনীত একাধিক সিনেমা সেখানে ব্যবসায়িকভাবে সফলও হয়েছে। তবে অতীত কাজের জন্য বলিউডে তাকে প্রতিষ্ঠা পেতে কম যন্ত্রণাও সহ্য করতে হয়নি!

পর্নো ইন্ডাস্ট্রিতে কাজ করার দায়ে বলিউডেও তাকে অনেকে মানসিকভাবে আক্রমণ করেছে, এর মধ্যে অনেক অভিনেতা-অভিনেত্রীরাও আছেন যারা প্রথম দিকে সানির সাথে কাজ করতেই রাজি হননি। ধর্মীয়ভাবেও তাকে নাজেহাল করার চেষ্টা করেছে অনেক উগ্র ধর্মীয় গোষ্ঠীগুলো। তবে যে যাই বলুক, নিজের কাজে স্থির আছেন সানি। কারো ভয়ে ভীত হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে ফিরে যাননি তিনি।

সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে নিজের ধর্ম বিশ্বাস নিয়ে কথা বলেছেন তিনি। এমনকি মাইকেলের সাথে বিয়েটাও নাকি ধর্মীয় রীতি মেনেই সম্পন্ন হয়েছে, এবং তা পাঞ্জাবি শিখ ধর্মালম্বীদের বিয়ে যে রীতি মেনে অনুষ্ঠিত হয় সেভাবেই। সানি বলেন, ‘আমার বাবা-মা খুব ধার্মিক ছিলেন। তারা সব সময় চাইতেন যেন আমার বিয়েটা শিখ ধর্মের রীতি মেনেই অনুষ্ঠিত হয়। এমনকি যখন আমি ছোট ছিলাম, তখন বাবা-মা এবং ভাইয়ের সাথে প্রতি সপ্তাহে ছুটির দিনে আমাকে কীর্তনে যেতে হত। বাবা-মা না থাকলেও আমি তাদের কথা রেখেছি, ওয়েবারকে আমি শিখ ধর্মমতেই বিয়ে করেছি।’






মন্তব্য চালু নেই