মেইন ম্যেনু

সানি লিওন ভক্ত এক ‘নারী অবতার’

কিশোরীর সঙ্গে যৌন কেলেঙ্কারির অভিযোগে কারাগারে বন্দী স্বঘোষিত ‘অবতার’ আসারাম বাপু। আর এ সুযোগকে কাজে লাগিয়ে ‘রাধে মা’ নামে এক নারী নিজেকে ‘নারী অবতার’ হিসেবে দাবি করে বসেছেন। আর ওই ‘রাধে মা’র মহিমা ছড়িয়ে দিতে মাঝামাঝেই সভার আয়োজন করেন ভক্তরা।

আর ওইসব সভায় মা তার মহিমা দেখান একটু ভিন্নভাবে। সেখানে তিনি নাচেন বলিউডের আইটেম বা পার্টি গানের সঙ্গে। ‘মুন্নি বদনাম’ কিংবা ‘শিলা কি জওয়ানি’র তালে কোমর দোলান তিনি।

‘নারী অবতার’ বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যেভাবে নাচেন সেটা অশ্লীল ও কুরুচিকর ছাড়া কিছুই নয় বলেও অভিযোগ করেন তার নিন্দুকেরা। ‘মা’ অবশ্য ওসব অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে বলেন, ‘এটাই আমার ভগবানকে কাছে ডাকার উপায়।’ আরো আশ্চর্য হবেন, ‘রাধা মা’ যার ভক্ত তার নাম শুনলে। তিনি হলেন সানি লিওন।

সানি লিওনকে ফলো করতে গিয়ে ‘রাধা মা’ অবসর সময়ে জিনস পরেই শপিং মলে যান। শর্ট স্কার্ট পরে সোফায় শুয়ে খোলাখুলি ছবিও তোলেন। মাঝে মাঝে নাকি পুরুষ ভক্তদের একেবারে কোলে উঠে আদরও করে দেন তিনি। শুধু তাই নয়, ভক্তদের চুম্বন এবং ক্ষেত্র বিশেষে ‘প্রসাদ’ হিসেবে যৌনাঙ্গ স্পর্শ করতে দেয়ার মতো অভিযোগও রয়েছে।

সম্প্রতি আধ্যাত্মিক বেশ ছেড়ে হঠাত্‍ মিনি স্কার্টে বিভিন্ন ঢংয়ে ক্যামেরায় ধরা দিয়েছেন তিনি। আর সেসব ছবিই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে ঝড় তুলেছে।

কিছুদিন আগেই পণবিরোধী আইনে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন ৩২ বছর বয়সী এক নারী। অভিযোগ, তার স্বামী ও শ্বশুরকে নগদ ৭ লাখ টাকা, সোনার গয়না এবং আরো বেশকিছু সুবিধা পেতে পণ দাবি করার উসকানি দিয়েছিলেন ‘রাধা মা’। আর সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়।

প্রসঙ্গত, পঞ্জাবের গুরদাসপুরের ডোরাঙ্গালা গ্রামে ১৯৬৫ সালের ৪ এপ্রিল জন্মগ্রহণ করেন ‘রাধা মা’। শৈশব থেকেই তার আধ্যাত্মিক জগতের প্রতি আকর্ষণ দেখতে পাওয়া যায়। চোট থেকেই বাড়ির কাছে কালী মন্দিরে তিনি বেশির ভাগ সময় কাটাতেন বলে শোনা যায়। ২৩ বছর বয়সে হোশিয়ারপুরের গুরু পরমহংস রামদীন দাসের কাছে তিনি দীক্ষা গ্রহণ করেন। বর্তমানে তার স্বামী, দুই ছেলে ও এক মেয়ে এবং জামাই রয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই