মেইন ম্যেনু

‘সানী আমাকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়েছিল, তখন আমি না বলে দিয়েছিলাম

তারকা দম্পতি ওমর সানী-মৌসুমী। অভিনয় করতে গিয়ে দুজন দুজনার প্রেমে পড়েছিলেন তারা। তারপর বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন এই দম্পতি। এরপর কেটে গেছে দাম্পত্য জীবনের দীর্ঘ সময়।

ঈদ উপলক্ষে সম্প্রতি একটি টেলিভিশন অনুষ্ঠানে হাজির হয়েছিলেন এই জুটি। এ সময় তারা তাদের প্রেমে পড়ার গল্প শোনান। এ প্রসঙ্গে মৌসুমী বলেন, ‘সানী আমাকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়েছিল। আসলে তখন আমার সিদ্ধান্ত নেওয়ার সাহস ছিল না। তাই সানীকে আমি না বলে দিয়েছিলাম। পরে সানী আমার সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়। শুধু তাই নয়, আমার সঙ্গে সিনেমা করবে না বলেও জানায়। তখন নিজেরই খুব খারাপ লাগতো। এভাবেই আমাদের প্রেমটা হয়েছিল। তারপর দুই দশকের বেশি ধরে একসঙ্গে আছি।’

মিডিয়াতে বিভিন্ন সময় তারকাদের নিয়ে নানা রকম খবর প্রকাশিত হয়। কিন্তু ওমর সানী-মৌসুমী পরস্পরের বন্ধনটা অনেক দৃঢ়। এ প্রসঙ্গে ওমর সানী বলেন, ‘আমরা দুজন-দুজনকে ভালোভাবেই বুঝি। যখন আমাদের নিয়ে নেতিবাচক কোনো খবর প্রকাশিত হয় তখন নিজেদের মধ্যে কথা বলি। পারস্পরিক বিশ্বাসই আমাদের ভালোবাসার শক্তি।’

বর্তমান প্রজন্মের অভিনেতা-অভিনেত্রীদের তারকা না হয়ে প্রকৃত শিল্পী হওয়ার পরামর্শও দেন সানী-মৌসুমী। পাশাশি দেশটাকে ভালোবাসতেও বলেন এই তারকা দম্পতি।

১৯৯৬ সালের ২ আগস্ট বিয়ের পিঁড়িতে বসেন মৌসুমী-ওমর সানী। এ দম্পতির ফারদিন এহসান স্বাধীন নামের একটি পুত্র সন্তান ও ফাইনা নামের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। বর্তমানে ফারদিন লস অ্যাঞ্জেলেসে ফিল্মের উপর পড়াশোনা করছে। পাশাপাশি হলিউডের সিনেমায় সহকারী পরিচালক হিসেবেও কাজ শুরু করছে সানী পুত্র।

‘দোলা’ সিনেমার মাধ্যমে প্রথম বড় পর্দায় জুটিবদ্ধ হন ওমর সানী-মৌসুমী। এরপর ‘আত্ম অহংকার’, ‘প্রথম প্রেম’, ‘মুক্তির সংগ্রাম’, ‘হারানো প্রেম’, ‘গরীবের রানী’,‘প্রিয় তুমি’, ‘শান্তি চাই’, ‘মিথ্যা অহংকার’, ‘লাট সাহেবের মেয়ে’ প্রভৃতি সিনেমায় অভিনয় করেন এই জুটি।






মন্তব্য চালু নেই