মেইন ম্যেনু

সাবধান, এই মহিলা আপনার ফেসবুকের ফ্রেন্ড হলে এখনই আনফ্রেন্ড করুন!

সোশ্যাল মিডিয়ায় বন্ধু হওয়া নিয়ে ব্যবহারকারীরা তেমন বিশেষ কিছু জিনিস দেখেন না। তবে মিউচুয়াল ফ্রেন্ডে নজর রাখেন প্রায় প্রত্যেকেই। চেনা ভার্চুয়াল বন্ধুরা তালিকায় থাকলে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট কনফার্ম করতে কেউ দ্বিধা করেন না। আর এই প্রবণতাকে কাজে লাগিয়েই কেউ কোনো অসাধু কাজো করতে পারেন। সেরকমই এক সতর্কবার্তা ছড়িয়েছে ফেসবুক জুড়ে।

কোন বিষয়ে সতর্ক হবেন ব্যবহারকারীরা? মধু শাহ নামে এক মহিলার প্রোফাইল নিয়ে সকলকে সতর্ক থাকার কথা বলছেন কিছু ব্যবহারকারী। কে এই মধু শাহ তা পরিষ্কার নয়। কেননা তার নামে ফেসবুকে অন্তত ২৭টি প্রোফাইল আছে। প্রত্যেকটিতেই আলাদা আলাদা ছবি দেয়া রয়েছে। এই প্রোফাইলগুলো থেকে একাধিক জনকে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠিয়েছেন তিনি। ফলে সোশ্যাল মিডিয়ার দুনিয়ায় তার কোনো না কোনো প্রোফাইলে মিউচুয়াল ফ্রেন্ড থাকবেই। এই ব্যাপারটিকেই কাজে লাগিয়ে বন্ধুতালিকা আরো বাড়াচ্ছেন প্রোফাইলের মালিক।

কিন্তু এ কি নিছকই বন্ধু হওয়ার শখ? ফেসবুক ব্যবহারকারীদের মতামত, শুধু শখ থেকে এ কাজ কেউ করতে পারেন না। নিশ্চিতই এর পিছনে অন্য কোনো উদ্দেশ্য কাজ করছে। আর এ ব্যাপারেই ছড়াচ্ছে সতর্কতা। হয়ত পাসওয়ার্ড হ্যাক বা ডেটা চুরির মতো কাজের জন্যই কাজে লাগানো হচ্ছে এই প্রোফাইলটিকে। হতে পারে এর পিছনে কোনো বিশেষ চক্র কাজ করছে। কিন্তু কোনো কারণই এখনো স্পষ্ট নয়। তবে একজনের কাছে একাধিক মোবাইলের সিমকার্ড থাকা যেভাবে সন্দেহজনক, ঠিক সেভাবেই সন্দেহ বাড়াচ্ছে এক ব্যক্তির এত সংখ্যক ফেক প্রোফাইল।

তবে ধারণা করা হচ্ছে এই অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে আপনার প্রোফাইলে থাকা সমস্ত ব্যক্তিগত তথ্য চুরি করাই ওই মহিলার কাজ। তাই এই ছবি এবং মধু শাহ নামে কেউ যদি আপনার ফেসবুকের বন্ধু হয়ে থাকেন, তাহলে এখনই আনফ্রেন্ড করুন। নাহলে আপনার বিপদ হতে পারে।

এই প্রোফাইলের মালিক যেমন মিউচুয়াল ফ্রেন্ডের বদৌলতে ছড়িয়ে দিয়েছে নেটওয়ার্ক, তেমনই ফেসবুকের দেওয়ালে দেওয়ালে এই প্রোফাইলের বিরুদ্ধে ছড়িয়েছে সতর্কতা। বন্ধু হওয়া না হওয়া অবশ্যই ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত।






মন্তব্য চালু নেই