মেইন ম্যেনু

সাবধান! এনার্জি সেভিং বাল্বে হতে পারে ক্যান্সার

বর্তমানে এনার্জি সেভিং বাল্বের ব্যবহার খুবই বেড়েছে। কারণ এটি আমাদের বিদ্যুৎ ও টাকা দুটোই সাশ্রয় করে। তাই আমরা আগের প্রচলিত বাল্ব পরিবর্তন করে এনার্জি সেভিং বাল্ব ব্যবহার করছি।

কিন্তু একবারও ভেবে দেখেছেন কী এর কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আছে কী না? এটি আপনার শরীর ও পরিবেশের উপযোগী কী না? হয়তো ভাবেননি কিন্তু এখন ভাবার সময় এসেছে।

কারণ এনার্জি সেভিং বাল্বের কারণে হতে পারে মাইগ্রেন থেকে শুরু করে ক্যান্সারও।

গবেষকরা জানিয়েছেন, প্রত্যেকটি এনার্জি সেভিং বাল্ব ভেঙে গেলে তা থেকে বিষাক্ত গ্যাস বের হয়। জার্মানির ফেডারেল এনভায়রনমেন্ট এজেন্সির গবেষণা অনুযায়ী, যদি এনার্জি সেভিং বাল্ব ঘরের ভেতর ভেঙে যায় তাহলে তা প্রায় ২০ গুণ ক্ষতিকর পারদ বাষ্প ছড়িয়ে দেয়, যা মারাত্মক ক্ষতিকর।

এছাড়া এনার্জি সেভিং বাল্বের কারণে হতে পারে নিম্নলিখিত রোগগুলো।
• মাথা ঘোরা
• প্রচন্ড মাথা ব্যাথা
• মাইগ্রেন
• হৃদরোগ
• ক্লান্তি
• অমনোযোগীতা
• উদ্বেগ

এনার্জি সেভিং বাল্বের কারণে এই রোগগুলো ব্যতিত ক্যান্সারও হতে পারে।

এনার্জি সেভিং বাল্বের ভেতর পারদ থাকে। পারদ একটি ক্ষমতাশালী নিউট্রিঅক্সিন যা বিশেষ করে শিশু এবং গর্ভবতী মহিলাদের জন্য ক্ষতিকর। এটি মস্তিষ্ক, স্নায়ুতন্ত্র, লিভার ও কিডনিতে বিষক্রিয়া তৈরি করে। কারডিওভাস্কুলার ও প্রজনন প্রক্রিয়ার ক্ষতি হতে পারে। এছাড়া এটি শরীরে কম্পন, দুশ্চিন্তা, অনিদ্রা, মাথাব্যথা প্রভৃতি সৃষ্টিতে সাহায্য করে।

জার্মানির আলাব পরীক্ষণ কেন্দ্রে কর্মরত পিটার ব্রাউন তার গবেষণায় জানিয়েছেন, উপাদান হিসেবে এনার্জি বাল্বের সঙ্গে ফিনল ব্যবহার করা হয়। যা কঠিন কয়লা বা আলকাতরা থেকে প্রাপ্ত আম্লিক বিষাক্ত সাদা অচ্ছ। এছাড়া ন্যাপথলিনও ব্যবহার করা হয়, যা কয়লা আলকাতরার পাতন দ্বারা তৈরি এবং রাসায়নিক উৎপাদনে ব্যবহৃত হয়। এ কারণে এনার্জি সেভিং বাল্ব ব্যবহারে ক্যান্সারেরও ঝুঁকি রয়েছে।

বিজ্ঞানীরা এনার্জি সেভিং বাল্বের বিকল্প হিসেবে এলইডি বাল্বের ব্যবহারকে উৎসাহিত করেছেন। তবে এলইডি বাল্বের দাম অনেক বেশি কিন্তু এর পরিচালনা (বিদ্যুৎ খরচ) ব্যয় অনেক কম এবং এলইডি বাল্ব অনেক বেশি দীর্ঘস্থায়ী।

লেখক: আফিরিনা ফেরদৌস






মন্তব্য চালু নেই