মেইন ম্যেনু

সাবধান, লাল মরিচে কামড় দিয়ে শিশুর মৃত্যু!

লাল মরিচে কামড় দিলেই মৃত্যু হয় এ কথা আগে কখনো শোনা না গেলেও এবার ঘটেছে তাই। তবে পাকা মরিচে কামড় পড়লে ছোট বড় সবারই এক প্রকার খবর হয়ে যায়। মরিচের ঝালে জিহ্বা জ্বলে চোখে পানি এসে যায়।

কিন্তু তাই বলে কি মরিচে কামড় পড়লে মৃত্যু হতে পারে! অবিশ্বাস্য হলেও এমন ঘটনা ঘটেছে প্রতিবেশি ভারতে। দুই বছরের এক শিশু ভুলক্রমে মরিচে কামড় দিলে শেষ পর্যন্ত মৃত্যু হয় তার। তােই লাল মরিচ থেকে শিশুদের সাবধানে রাখুন।

এ খবর দিয়েছে টাইমস নিউজ নেটওয়ার্ক

এদিকে মরিচে কামড় দেয়ায় শ্বাসকষ্টজনিত কারণে তার মৃত্যু হয় বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। স্থানীয় একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। পরে রাজধানী দিল্লিস্থ অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অব মেডিকেল সায়েন্সে (এআইআইএমএস) তার পোস্ট মর্টেম করা হয়। এতে তার মৃত্যুর কারণ বেরিয়ে আসে।

বিরল এ ঘটনাটি মাস দুয়েক আগে ঘটলেও সম্প্রতি এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন ‘মেডিকো লিগাল’ নামে একটি জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে। এতে বলা হয়, এআইঅাইএমএস’এ শিশুটির মরদেহে পোস্ট মর্টেমে দেখা গেছে, মরিচে কামড় দেয়ার ফলে শ্বাসনালীকে গ্যাস্ট্রিক ফ্লুয়িড ঢুকে তার মৃত্যু হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, লাল মরিচে কামড় দেয়ার পর শিশুটির বেশ কয়েকবার বমি হয়। এতে গ্যাস্ট্রিক ফ্লুইড তার শ্বাসনালীকে ঢুকে পড়ে, যা শিশুটির মৃত্যুর কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

ঘটনার পরপরই স্থানীয় একটি হাসপাতালের চিকিৎসকরা শিশুটিকে শুরুর দিকে বাঁচিয়ে রাখতে সক্ষম হয়েছিলেন। তবে এর ২৪ ঘণ্টা পরই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে শিশুটি।

মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকদের অভিমত, সম্ভবত গ্যাস্ট্রিক ফ্লুয়িড বা বমি শিশুটির শ্বাসনালীতে ঢুকে তার শ্বাস বন্ধ হয়ে মৃত্যু হয়।

এ বিষয়ে এআইআইএমএসের সংশ্লিষ্ট সার্জন ড. চিত্তরঞ্জন বাহেরা বলেন, শ্বাসকষ্টজনিত কারণে গ্যাস্ট্রিক উপাদান শ্বাসনালীতে ঢুকে মৃত্যু ঘটায়। তবে এ ধরনের ঘটনা অসচরাচর নয়। লাল মরিচে কামড় দিয়ে মৃত্যুর ঘটনা আমাদের হাসপাতালে এই প্রথম।

মেডিকেল জার্নালেও এ ধরনের ঘটনা বিরল বলে জানান মি. বাহেরা।






মন্তব্য চালু নেই