মেইন ম্যেনু

সারা শরীরে জখমযুক্ত শিশু উদ্ধার, গৃহকর্ত্রী আটক

সারা শরীরে কাটা দাগ। মুখে জখমের চিহ্ন। পিঠে ও পায়ের উরুতে খুন্তির ছ্যাঁকা। বুধবার সকালে এমনই একটি শিশুর দেখা মেলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে। শিশুটির নাম মিনারা (৯)। সে ১৮৭/আরামবাগের একটি বাসায় গৃহকর্মী হিসেবে কাজ করতো।

বুধবার সকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ওই বাসা থেকে মিনারাকে উদ্ধার করে পুলিশ। পরে তার অভিযোগের ভিত্তিতে ওই বাসার গৃহকর্ত্রী দিলওয়ারা রহমান ওরফে মিনাকে আটক করা হয়।

গৃহকর্মী শিশুটির অভিযোগ, তাকে গৃহকর্ত্রী প্রতিদিন মারধর ও গরম খুন্তি দিয়ে ছ্যাকা দিতো। মারধরের সময় টিভির সাউন্ড বাড়িয়ে দিতো। কান্নাকাটি করলে বাথরুমে আটকে রাখা হতো।

গুরুতর অবস্থায় মিনারাকে উদ্ধার করে ঢামেকে নিয়ে যান মতিঝিল থানার এসআই হাছান। পরে থানায় যোগাযোগ করা হলে ডিউটি অফিসার এসআই নিশাদ জাহান গৃহকর্ত্রীকে আটকের তথ্যটি নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, ‘নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে গৃহকর্ত্রী মনিকে আদালতে পাঠিয়ে রিমান্ড আবেদন জানানো হয়েছে।’






মন্তব্য চালু নেই