মেইন ম্যেনু

সার্টিফিকেট মামলা দায়ের করেও বকেয়া টাকা আদায় করতে পারছেনা কলারোয়া কৃষিব্যাংক

প্রাকৃতিক দূর্য্যগে,ঋণ পরিশোধে অনিহা,একাধিক ঋণ প্রদান কারী সংস্থ্যা এবং গ্রেফতারী পরোয়ানা ঠিকমত তমিল না হওয়ার কারনে বাংলাদেশ কৃর্ষি ব্যাংকের সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলা শাখা সার্টিফিকেট মামলা দায়ের করেও বকেয়া ঋণের টাকা আদায় করতে পারছে না।

বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক কলারোয়া শাখার মোট ঋণ গ্রহীতা কৃষকের সংখ্যা ২ হাজার ৮ শ ৪৩ জন। তাদের মধ্যে ব্যাংক ঋনের পরিমান ১৯ কোটি ২০ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা। ব্যাংকের ঋন খেলাফী কৃষকের সংখ্যা হলো ৩শ’৬০জন। তাদের কাছে ব্যাংকের পাওনা রয়েছে ২৭ লক্ষ ৯৮ হাজার ৮শ’টাকা।

গত ১৯৯৪ / ৯৬ সাল থেকে চলে আসা সার্টিফিকেট মামলার সংখ্যা ৭৭ টি। ঐ সমস্ত কৃষকের কাছে পাওনা রয়েছে ৬ থেকে ৭ লাখ টাকা। মামলা করার পর কৃষকেরা ঋন পরিশোধে ব্যার্থ হওয়ার কারনে আদালত তাদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারী করেছে। কিন্তু তার পরও কৃষকেরা ঋনের টাকা পরিশোধ করছে না।
গ্রেফতারী পরোয়ানা জারী হওয়ার পর ও কেন পুলিশ তাদেরকে গ্রেফতার করছে না এ ব্যাপারে কলারোয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু সালেহ মাসুদ করিমের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, আমার জানা মতে কলারোয়া থানায় সার্টিফিকেট মামলার কোন ওয়ারেন্ট নেই। অথচ কলারোয়া উপজেলার সর্টিফিকেট আদালতের তথ্য অনুযায়ী উপজেলার প্রায় ২৫০ জন কৃষকের নামে সার্টিফিকেট মামলার ওয়ারেন্ট আছে।

কলারোয়া কৃষি ব্যাংকের শাখা ব্যবস্থাপক আব্দুল ওয়াহাব এ প্রতিবেদককে জানান, চলতি অর্থ বছরে ব্যাংকটির কলারোয়া উপজেলার কৃষকদের মাঝে ১০ কোটি টাকা ঋন দেওয়ার টাগেট রয়েছে। ইতোমধ্যে ২ কোটি ২৪ লাখ ৩০ হাজার টাকার ঋন বিতরণ করা হয়েছে। ঋণের বাকী টাকা টাকা আগামী দু এক মাসের মধ্যে বিতরণ সম্পন্ন হবে। গত বছর টাকা আদায়ের লক্ষমাত্রা ছিল ৬ কোটি ৭১ লক্ষ ৯৬ হাজার টাকা। এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত ব্যাংকটির আদায় হয়েছে ২ কোটি ৩১ লক্ষ ৫৫ হাজার টাকা।

বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক কলারোয়া শাখা কৃষকদের ধান,পাট,ডাল ,আলু,শাখ সবজি,মৎস চাষ সহ প্রায় ১১৬ প্রকার কৃষি সম্পৃক্ত পন্যের উপর কৃষি ঋণ দিয়ে থাকে। কিন্ত ব্যাংকটিকে সরকারের অর্পিত বয়স্কভাতা,উপবৃত্তি,বিদ্যূৎ/ টেলিফোন বিল গ্রহণ,প্রতিবন্ধি ভাতা,কৃষি ভূর্তুকী সহ নানাবিধ কাজ করতে হয়ে।

এর ফলে কৃষকেদের মাঝে ঋণ বিতরণ ও আদায়ের ক্ষেত্রে কিছুটা বিঘ্ন সৃষ্টি হয়। আর এতে করে কৃষকেরা সময় মত ঋণ পেতে ব্যার্থ হয়। সে জন্য অনেক সময় ঋণের টাকা গ্রহন করে ও সঠিক সময়ে সঠিক কাজে লাগাতে তারা ব্যার্থ হন।ঠিক মত ঋণ পরিশোধ না করার পিছনে এটাও একটা কারন।

কলারোয়ার হাজারো কৃষকেরা কলারোয়া কৃষি ব্যাংক থেকে সঠিক সময়ে, সহজ শর্তে ঋণ বিতরণ করার জন্য বর্তমান কৃষি বান্ধব সরকারের নিকট জোর দাবী জানিয়েছেন।






মন্তব্য চালু নেই