মেইন ম্যেনু

সালথায় যোগারদিয়া স্কুলঘর ও খেলার মাঠের বেহাল দশা

মহসিন উদ্দিন, সালথা, ফরিদপুর: ফরিদপুরের সালথা উপজেলার সোনাপুর ইউনিয়নের জোগাড়দিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের টিনসেড ঘর ও খেলার মাঠটি বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে। জায়গায়-জায়গায় গর্ত, উচু-নিচু ও অসমতল মাঠটি সামান্য বৃষ্টিতে মাগুর মাছের চাষ করা যায়। বণ্যা-দূর্গত আশ্রয়কেন্দ্রের সামনের এ মাঠটি স্কুল ছাত্রদের খেলা-ধুলা এবং সারি বেঁধে জাতীয় সংগীত গাইবারও অনুপযোগি হয়ে পড়েছে।

এদিকে শিক্ষার্থীদের পাঠদানের ক্ষেত্রে ক্লাসরুম স্বল্পতার কারণে শিক্ষা কার্যক্রম বিগ্নিত হচ্ছে। দুইটি মাত্র হাজামজা টিনসেড ঘরে একটুখানি বৃষ্টি হলে গড়িয়ে পড়ে পানি। যার কারণে ছাত্র-ছাত্রীদের বই-খাতা ও ব্যাগ ভিজে লেখা-পড়ায় অযোগ্য হয়ে পড়ে। সরেজমিনে গিয়ে এরই বাস্তব চিত্র না দেখলে বিশ্বাস করা যাবে না।

বুধবার স্কুল শিক্ষার্থীরা এ প্রতিনিধিকে জানান, আমাদের স্কুলের টিনের ঘর দুটি ও খেলার মাঠটি ব্যবহারের অনুপযোগি হয়ে পড়েছে। আমরা খেলা-ধূলা করা থেকে বঞ্চিত হচ্ছি। বৃষ্টির সময় রুমে পানি পড়ায় ভোগান্তির মধ্যে পড়তে হচ্ছে আমাদেরকে। তাই আমরা স্কুল ভবন নির্মাণ ও খেলার মাঠে মাটি ভরাট করার জন্য সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করছি।

জোগাড়দিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সঞ্জয় কুমার দাস বলেন, আমার বিদ্যালয়ে প্রায় ৫ শতাধিক শিক্ষার্থী ও ১১ জন শিক্ষক রয়েছে। এরমধ্যে ৩ জন শিক্ষক বেতন পায় না। দুটি টিনসেড ঘর আছে কিন্তু বৃষ্টিতে পানি পড়ে। স্কুলটি জুনিয়র এমপিও ভূক্ত কিন্তু এখনও হাই এমপিও ভূক্ত হয় নাই।

অথচ জে.এস.সি পরীক্ষার ভ্যানু হিসাবে স্কুলটি ব্যবহৃত হয়। আমরা স্কুলের ভবন নির্মাণসহ সামগ্রিক উন্নয়ণ দাবী করছি।উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার বিনয় কুমার চাকী বলেন, স্কুলের এসব সমস্যাগুলো আমাদের লিখিত ভাবে জানালে, আমরা শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরে চাহিদা পাঠাবো।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই