মেইন ম্যেনু

সালমানের হাত ধরে রাজসিক অভিষেক

আলোচনা, সমালোচনা আর দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর ১১ সেপ্টেম্বর ভারতের সিনেমা হলে মুক্তি পেল বহুল প্রতিক্ষীত ছবি ‘হিরো’। যাতে সুপারস্টার অভিনেতা সালমানের হাত ধরে বলিউডে পা রাখলেন নতুন দুই অভিনেতা-অভিনেত্রী!

জানা গেছে, ১৯৮৩ সালে জ্যাকিশ্রফের অভিষিক্ত সিনেমার নাম ছিল ‘হিরো’, যা নির্মাণ করেছিলেন ভারতের মেধাবী নির্মাতা সুভাষ ঘাই। আর ওই ছবিটিরই অফিশিয়াল রিমেক হয়েছে সালমান খানের প্রোডাকশনে নির্মিত শুক্রবারে মুক্তি পাওয়া ছবি ‘হিরো। সুপারস্টার অভিনেতা সালমান তার রিমেক ‘হিরো’তেও নতুন জুটিকে বেছে নিয়েছেন। এই ছবিতে সালমান হিরো হিসেবে বেছে নেন বলিউড অভিনেত্রী জিয়া খানের প্রেমিক সুরজ পাঞ্চোলিকে, আর নায়িকা হিসেবে নির্বাচন করেন বন্ধু অভিনেতা সুনীল শেঠি কন্যা আথিয়া শেঠিকে। দু‘জনেই বলিউডে প্রথমবার পা রাখলেন।

ছবি মুক্তির আগে এই নতুন জুটির চমক নিয়ে যেমন আলোচনা হয়েছে, তেমনি হয়েছে অভিনেতা সুরজ পাঞ্চোলিকে নিয়ে সমালচনাও। আর এই সমালোচনা আরো উস্কে গিয়েছিল যখন মিডিয়ার সামনে ‘হিরো’ মুক্তির মাত্র এক সপ্তাহ আগে সুরজ মৃত অভিনেত্রী জিয়া খানকে নিয়ে মুখ খুলেন। জিয়া খানের খুন হওয়া প্রসঙ্গে যখন দীর্ঘদিন চুপ ছিলেন সুরজ, তখন ছবি মুক্তির আগে হঠাৎ করে মুখ খুলে অনেকের সমালোচনার পাত্রে পরিনত হন তিনি। অনেকে বলতে থাকেন এটা ছবি প্রচার এবং আলোচনায় আসার একটা কৌশল মাত্র।

যদিও সুরজ দাবী করেছিলেন যে, সাবেক প্রেমিকা অভিনেত্রী জিয়া খানকে নিয়ে সস্তা প্রচার আশা করেন না বলে জানিয়ে ছিলেন বলিউডের চলচ্চিত্রে অভিষেক হতে যাওয়া সুরজ পাঞ্চোলি। জিয়ার মৃত্যুর পর প্রথমবার তাকে নিয়ে মুখ খোলার পরবর্তী প্রতিক্রিয়া হিসেবে এমন কথা বলেন তিনি। এ প্রসঙ্গে তিনি বলে ছিলেন, সস্তা প্রচারণার আশায় আমি জিয়াকে নিয়ে কিছু বলিনি। তাকে আমি সত্যিই খুব ভালবাসি। জিয়া খানের রহস্যময় মৃত্যুর পর একাধিকবার সুরজ ও তার বাবাকে পুলিশি জিজ্ঞাসার মুখে পড়তে হয়েছে। এই বিষয়ে গণমাধ্যমের কোনো প্রশ্নেরও কখনো উত্তর দেননি সুরজ ও তার বাবা।

অন্যদিকে সদ্য মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি ‘হিরো’ নিয়ে ব্যাপক আশাবাদী সালমান। তিনি ছবিটির প্রচারণার ক্ষেত্রে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে ছিলেন, শুধু তাই না, এই ছবির টাইটেল সং গেয়ে তিনি ব্যাপক সাড়া ফেলেছেন। এছাড়াও নায়িকা হিসেবে আথিয়া শেঠিও ভারতীয়দের , যিনি কিনা জনপ্রিয় অভিনেতা সুনীল শেঠির কন্যা বলে প্রথমবার অভিনয় করতে বলিউডে পা রাখার বিষয়টিও ভারতীয়দের আগ্রহের কারণ।

সালমানের প্রোডাকশন ‘এসকে’-এর ব্যানারে নির্মিত হয়েছে আশির দশকের সাড়া জাগানো ছবি ‘হিরো’-এর রিমেক। এছাড়াও নানা সময়ে মুক্তির আগে ছবিটি আলোচনায় এসেছে। এরমধ্যে একটি বিষয় ছিল সুরজ-আথিয়ার ‘লিপ-লক’ বিষয়ে। কাহিনীর প্রয়োজনে ছবিতে নবাগত দুই অভিনেতা-অভিনেত্রীর ‘লিপ-লক’ দৃশ্য রাখলেও পরবর্তীতে সালমানের অনুরোধে নিখিল আদভানি দৃশ্যটি ছবি থেকে পরিহার করেন! যদিও এরমধ্যে এমন ঘনিষ্ঠ দৃশ্য নিয়ে বলি-পাড়ায় হয়ে গেছে আলোচনার ঝড়!

শুধু তাই না, সালমান খানের প্রডাকশনের বলে অনেক তারকা অভিনেতা ও অভিনেত্রীদেরও প্রচারণায় পাশে পেয়েছেন সদ্য অভিষিক্ত দুই তরুণ অভিনেতা-অভিনেত্রী। ইতিমধ্যে ১১ সেপ্টেম্বর শুক্রবারে ‘হিরো’ মুক্তির আগেই বলিউডের অনেক তারকা অভিনেতা-অভিনেত্রীরা সুরজ ও আথিয়ার উদ্দেশ্যে শুভ কামনা জানিয়েছেন।

সবকিছু মিলিয়ে এখন পর্যন্ত সবদিক থেকেই পূর্ণ সমর্থন পাচ্ছেন সালমানের প্রোডাকশনে নির্মিত ছবি ‘হিরো’র অভিনেতা-অভিনেত্রীরা। এখন দেখার বিষয় সেই অনুযায়ি ‘হিরো’ ভারতের বক্স অফিসে কতটা সাফল্য দেখাতে পারে।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই