মেইন ম্যেনু

সালমান-শাহরুখের সামনে পুরস্কার গেল রনবীরের হাতে

ধারণা করা হচ্ছিল ৬১তম ফিল্মফেয়ার উৎসবে সেরা অভিনেতার লড়াইয়ে পুরস্কার চলে যেতে পারে বজরঙ্গি ভাইজান খ্যাত সালমান খান কিংবা দিলওয়ালে ছবির জন্য শাহরুখ খানের হাতে। কিন্তু সিনে আলোচকদের ধারনাকে ভুল প্রমানিত করে সেরা অভিনেতার মুকুট ভাগিয়ে নিলেন রনবীর সিং। বাজিরাও মাস্তানি ছবিতে অনবদ্য অভিনয় করে তিনি এই সেরার মুকুটটি অর্জন করেন।

জানা গেছে, হিন্দি চলচ্চিত্রের ইতিহাসে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ আর প্রাচীন চলচ্চিত্র পুরস্কারের নাম ‘ফিল্মফেয়ার’। ১৯৫৪ সাল থেকে অনুষ্ঠিত হওয়া সুবিখ্যাত এই চলচ্চিত্র পুরস্কারটি হিন্দি চলচ্চিত্র সম্পর্কিত বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে পুরস্কার দিয়ে আসছে। আর এবার সেরা অভিনেতাসহ চলতি আসরে বেশ দাপট দেখালো মেধাবী নির্মাতা সঞ্জয়লীলা বানসালি পরিচালিত ঐতিহাসিক ছবি ‘বাজিরাও মাস্তানি’।

হ্যাঁ, ৬১তম ফিল্মফেয়ারে বিজয়ীদের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ হয়েছে। সেরা চলচ্চিত্র, নির্মাতা, অভিনেতা, অভিনেত্রী, পার্শ্ব-চরিত্র, ছবিতে সঙ্গীত পরিচালক, গীতিকার, সুরকার, কণ্ঠশিল্পীসহ আরো বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে গুরুত্বপূর্ণ পুরস্কারটি প্রদান করা হয় গতকাল। আর এই গুরুত্বপূর্ণ পুরস্কারে সেরা অভিনেতা হিসেবে মনোনীত হয়েও এবার বাজিরাও রনবীরের কাছে হেরে গেলেন বজরঙ্গি ভাইজান খ্যাত সালমান খান এবং বলিউড বাদশাহ শাহরুখ খান।

১৫ জানুয়ারি মুম্বাইয়ের বল্লাভাই প্যাটেল স্টেডিয়ামে ৬১তম ফিল্মফেয়ার-এর চূড়ান্ত উৎসবটি অনুষ্ঠিত হয়। আর এখানেই হাজারো মানুষ আর তারকার উপস্থিতিতে জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে জানিয়ে দেয়া হয় ২০১৫ সালের সিনেমাগুলোর জন্য কারা কারা সেরার মুকুট অর্জন করেছেন।

‘৬১তম ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ডস’-এর বিজয়দীরে পূর্ণ তালিকা:
সেরা ছবি- বাজিরাও মাস্তানি(বাজিরাও মাস্তানি)
সেরা নির্মাতা- সঞ্জয়লীলা বানসালি(বাজিরাও মাস্তানি)
সেরা অভিনেতা- রনবীর সিং(বাজিরাও মাস্তানি)
সেরা অভিনেত্রী- দীপিকা পাডুকোন(পিকু)

সেরা চিত্রনাট্য- পিকু (জুহি চতুর্বেদি)
সেরা ছবি সম্পাদনা- তলভার (এ শ্রীকার প্রসাদ)
সেরা গল্প- বজরঙ্গি ভাইজান (বিজয়েন্দ্র প্রসাদ)
সেরা সংলাপ- তনু ওয়েডস মনু রিটার্নস (হিমাংশু শর্মা)

ডেব্যু নির্মাতা- নীরজ ঘাইওয়ান (মাসান)
নতুন অভিনেত্রী- ভূমি পান্ডেরকর (দম লাগা কে হেইশা)
নতুন অভিনেতা- সুরজ পাঞ্চোলি (হিরো)

বিচারকদের পছন্দে সেরা ছবি- পিকু
সমালোচক পছন্দে সেরা অভিনেতা- অমিতাভ বচ্চন (পিকু)
সমালোচক পছন্দে সেরা অভিনেত্রী- কঙ্গনা রনৌত (তনু ওয়েডস মনু রিটার্নস)

পার্শ্ব-অভিনেত্রী- প্রিয়াঙ্কা চোপড়া (বাজিরাও মাস্তানি)
পার্শ্ব-অভিনেতা- অনিল কাপুর (দিল ধাড়াকনে দো)

আজীবন সম্মাননা- মৌসুমী চ্যাটার্জি

কস্টিউম- বাজিরাও মাস্তানি (অঞ্জু মোদি ও ম্যাক্সিমা বসু)
সাউন্ড- তলভার (সাজিথ কয়েরি)
শিল্প নির্দেশনা- বাজিরাও মাস্তানি (সুজিত সাওয়ান্ত, শ্রীরাম আয়াঙ্গার ও সালোনি ধাত্রাক)
নৃত্য পরিচালক- পন্ডিত বিরজু মহারাজ (মোহে রঙ দো লাল, বাজিরাও মাস্তানি)

সিনেমাটোগ্রাফার- দম লাগা কে হেইশা (মনু আনন্দ)
অ্যাকশন- বাজিরাও মাস্তানি (শ্যাম কওসল)
আবহসংগীত- পিকু (অনুপম রায়)
ভিজ্যুয়াল ইফেক্টস- বোম্বে ভেলভেট (প্রান স্টুডিও)

সঙ্গীত পরিচালক- অঙ্কিত তেওয়ারি, মিট ব্রস অঞ্জন ও অমল মল্লিক: রয়)
কণ্ঠশিল্পী(পুরুষ)- অরিজিৎ সিং (সুরজ ডুবা হ্যায়: রয়)
কণ্ঠশিল্পী(নারী)- শ্রেয়া ঘোষাল (দিওয়ানি মাস্তানি:বাজিরাও মাস্তানি)
গীতিকার- ইরশাদ কামিল (আগার তুম সাথ হো: তামাশা)

আরডি বর্মণ অ্যাওয়ার্ড- আরমান মালিক

উল্লেখ্য, এখন পর্যন্ত ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ড-এ সেরা অভিনেতার পুরস্কার ৮বার করে নিয়ে শীর্ষে আছেন যথাক্রমে দিলীপ কুমার, অমিতাভ বচ্চন এবং শাহরুখ খান। নির্মাতা হিসেবে সবচেয়ে বার ফিল্মফেয়ার জিতেছেন বিমল রায়(৭বার)। তারপরেই ৪বার করে সেরার পুরস্কার নিয়ে ২ ও ৩ নম্বরে আছেন যথাক্রমে রাজ কাপুর ও যশ চোপড়া। এছাড়া সেরা সিনেমা হিসেবে সবচেয়ে বেশী পুরস্কার জিতে নিয়েছে ‘ব্ল্যাক’ ছবিটি। ২০০৫ সালে নির্মিত ছবিটি ১১টি ক্যাটাগরিতে পুরস্কার জিতে নিয়েছে। এছাড়া শাহরুখ অভিনীত দিলওয়ালে দুলহানিয়ে লে জায়েঙ্গে এবং দেবদাস ছবিটি ১০টি ক্যাটাগরিতে পুরস্কার নিয়ে ২য় এবং তৃতীয়স্থানে আছে।






মন্তব্য চালু নেই