মেইন ম্যেনু

সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর সেই দম্ভোক্তি

মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলার চূড়ান্ত রায়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর মৃত্যুদণ্ড বহাল রেখেছে সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগ।

আজ রিভিউয়ের ওপর শুনানি শেষে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে আপিল বিভাগ ঘোষিত রায়ে তার ফাঁসির আদেশ বহাল রাখা হয়।

রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষা ছাড়া প্রভাবশালী এই নেতার ফাঁসি কার্যকরে এখন আর কোনো বাধা রইল না।

ফাঁসির মুখে থাকা এই নেতার অতীত কর্মকাণ্ড এখন সর্বত্র আলোচনায়। ঘুরেফিরে আসছে যুদ্ধাপরাধ, ট্রাইব্যুনালসহ নানা বিষয় নিয়ে তার দম্ভোক্তির কথা।

২০১০ সালে যুদ্ধাপরাধের দায়ে অভিযুক্ত হয়ে গ্রেপ্তার হওয়ার পর সাকা বলেছিলেন, ক্ষমতায় গেলে তিনি দেখে নেবেন। তাকে বন্দী করে রাখার কারাগার বিশ্বে কোথাও নির্মিত হয়নি।

যখন বিচার শুরু হলো তখনও নানা সময় তিনি দম্ভোক্তি করেছেন আদালতের কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে। তিনি বলেছেন, আমরা জাত সাপ, ঢোঁড়া বোড়া না, সময়মতো কামড় দেব। প্রয়োজনে বিদেশি শক্তি আমাকে উদ্ধার করবে। তার বিরুদ্ধে সাক্ষী দেবে এমন কোনো লোক চট্টগ্রামে নেই।

বিচার চলাকালে একবার জোহরের আজান দেয়ার সময় সাকা প্রসিকিউটরদের দিকে ইশারা করে বলেছেন, আস্তিকরা কথা বলবেন না, নাস্তিকরা বলুন।

তবে বিচারকাজের শেষ পর্যায়ে এসে সুর নরম হয়ে যায় চট্টগ্রামের প্রভাবশালী পরিবারের এই রাজনীতিকের। ট্রাইব্যুনালকে সাকা বলেছেন, ফাঁসি তো দেবেনই, পরোয়া করি না।

সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী শুধু ট্রাইব্যুনাল নিয়েই নয়; নানা সময় নানা বক্তব্যের কারণে তিনি আলোচিত-সমালোচিত হয়েছেন।






মন্তব্য চালু নেই