মেইন ম্যেনু

সিজারে জন্ম নেওয়া বাচ্চার বেশি বুদ্ধি হয় কি ?

এ রকম অদ্ভুত একটা ধারনা আজকাল অনেকের মনে বাসা বাঁধছে। ক্রমাগত জটিল থেকে জটিলতার পৃথিবীর আর তার পরিবেশের সঙ্গে খাপ খাওয়াতে গিয়ে প্রকৃতির নিজস্ব নিয়মে আজকাল বাচ্চারা আগের দিনের চাইতে অপেক্ষাকৃত কম বয়সেই অনেক কিছু জেনে যাচ্ছে, শিখে নিচ্ছে।

বিশেষ করে শহরাঞ্চলের উচ্চ-মধ্যবিত্ত পরিবারগুলোতে মাত্র একটা বা দুটো বাচ্চা থাকায় এদের স্বাস্থ্য-প্রতিপালন আর শিক্ষা আগের অনেক বাচ্চা থাকা পরিবারের চাইতে নজর আর গুরুত্ব পাচ্ছে অনেক অনেক বেশি। আর এটাও ঘটনা যে স্বাস্থ্য ব্যবস্থা আর চিকিৎসার সুযোগ-সুবিধা গ্রামাঞ্চলের তুলনায় বেশি থাকায় শহুরে মেয়েদের সিজার হচ্ছে বেশি।

এ কথা বললে ভুল হবে না যে পরিবেশের আর প্রতিযোগিতার সঙ্গে বুঝতে আজকাল শহুরে বাচ্চাদের বড় হতে হচ্ছে আগের চাইতে অনেক বেশি দ্রুতলয়ে। বাচ্চার বুদ্ধি বা বিকাশ কিছুটা নিরভর করে বংশগতির উপর। বাকিটা বড় হবার পরিবেশ আর সুযোগ-সুবিধার উপর।
স্বাভাবিক প্রসব আর সিজার করা বাচ্চাদের বুদ্ধি বা বিকাশ নিয়ে কোনো তুলনামূলক বিজ্ঞানসম্মত গবেষণা এ দেশে হয়নি। তবে বাচ্চার বুদ্ধির সঙ্গে তার কোনো সম্পর্ক থাকবার সম্ভাবনা নেই বা থাকতে পারে না- এ কথা নির্দ্বিধায় বলা যায়।






মন্তব্য চালু নেই