মেইন ম্যেনু

সিম কার্ড পুনঃনিবন্ধনে দূর্নীতি চরমে ॥ গ্রাহকরা বাধ্য হচ্ছে টাকা দিতে

মোহাম্মদ সাকিব চৌধুরী, খানসামা (দিনাজপুর) থেকে: দিনাজপুরের খানসামা উপজেলায় বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সিম কার্ড পুনঃনিবন্ধনে রিটেইলারা সীমাহীন দূর্নীতি শুরু করেছেন। তারা গ্রাহকদের বাধ্য করে প্রতিটি সিম নিবন্ধনের ক্ষেত্রে ৫ টাকা থেকে শুরু করে ৫০ টাকা পর্যন্ত আদায় করছেন। এতে কেউ সরকারি নিয়ম নীতির কথা বলে প্রতিবাদ করলে রিটেইলাররা গ্রাহকদের সাথে ঝগড়া-বিবাদে জড়ি পড়ছে। এছাড়াও প্রতিবাদীদের নামে সিম নিবন্ধনের পুরণকৃত ফরম ছিঁড়ে আগুনে পুড়ে ফেলছে তারা।

উপজেলা ঘুরে দেখা গেছে, খানসামা বাজারের অর্পিতা টেলিকম ১০ টাকা, খানসামা কাস্টমার কেয়ারস্থ সফিক এন্টারপ্রাইজ ৫ টাকা, রফিকুল টেলিকম ১০ টাকা, পাকেরহাটের সরকার এন্টাপ্রাইজ ২০ টাকা, টংগুয়া বাজারের রশিদুল টেলিকম ১০টাকা, চৌরাঙ্গী বাজরের সাজু টেলিকম ২০টাকা, কাচিনীয়া হাটের ফাতেমা ট্রেডার্স ১০ টাকা, গোয়ালডিহি ভুল্লাহাটের ভাই ভাই ইলেকট্রনিক ফরম ফটোকপি ও ছবি সহ ৫০ টাকা, শিমুলতলী বাজারের রিমি ফার্মেসীতে গ্রাহককদেরকে বাধ্য করে ১০ টাকা করে আদায় করছে।

কথা হয়, খানসামা এলাকার মজিবুল হক, সাজেদুর রহমান, একরামুল হক, পাকেরহাট এলাকার শংকর মহন্ত, আব্দুর রহমান, সিরাজুল ইসলাম, অরুণ চন্দ্র রায়, দেবা রাণী, কাচিনীয়া হাট এলাকার নজরুল ইসলাম, খনিজ চন্দ্র, আ: হামিদ, শাহজাহান আলী, হবিবর রহমান, ভুল্লার হাট এলাকার, মনোরঞ্জন রায়, আকবর আলী ডাবলু, আখতার হোসেন, বাবলু রহমান, নাজমিন আক্তার, পুতুল রায়, শিমুলতলী এলাকার মিজানুর রহমান, রুবেল ইসলাম, সবুজ হোসেন, চৌরাঙ্গী এলাকার মশিউর রহমান, তাইজুল ইসলাম, আজাহার আলী এবং টংগুয়া এলাকার আতিকুল ইসলাম, দয়াল চন্দ্র রায়, আবু রায়হান সহ শতাধিক জনের সাথে, তারা বলেন, এসব রিটেইলারগণ গ্রাহকদেরকে বাধ্য করে ৫ টাকা থেকে শুরু করে ৫০ টাকা পর্যন্ত আদায় করছে। এতে কেউ প্রতিবাদ করলে প্রতিবাদীর নামে পুরণকৃত সিম নিবন্ধন ফরম ছিঁড়ে পুড়ে ফেলা হচ্ছে বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ব্যাপারে পাকেরহাট কাস্টমার কেয়ারের কাস্টম্যানেজার মো: তানভীর হোসেনের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, সিম নিবন্ধনে টাকা নেয়ার বিষয়টা সরকার এবং কোম্পানীর পক্ষ থেকে নিষেধ করা হয়েছে। এরপরও যদি কেউ টাকা নেন তাহলে কর্তৃপক্ষ তাদের ব্যবস্থা নেবেন বলেও তিনি জানান।






মন্তব্য চালু নেই