মেইন ম্যেনু

সিরাজগঞ্জে নৌ ডাকাত-পুলিশ গুলি বিনিময়, আহত ২

সিরাজগঞ্জে যমুনা নদীতে নৌ ডাকাত ও পুলিশের মধ্যে গুলি বিনিময় হয়েছে। এতে স্কুলছাত্রসহ দুইজন রাবার বুলেট বিদ্ধ হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ তাদের আটক করেছে।

এরা হলেন- সদর উপজেলার ভাঙ্গারারচর এলাকার আমজাদের ছেলে মো. লিটন (২২) ও একই এলাকার আয়নাল ডাকাতের ছেলে এবং মেছড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্র আবু মোতালেব (১৬)।
পুলিশ এদের সক্রিয় নৌ-ডাকাত দলের সদস্য দাবি করলেও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা তা অস্বীকার করেছেন।

রোববার দুপুরে যমুনা নদীর রুপসার চর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুল বারেক জানান, সদর উপজেলার যমুনার রূপসার চরে যাত্রীবাহী একটি নৌকায় ডাকাতি সংগঠতি হবে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রোববার দুপুর সোয়া ১টার দিকে পুলিশ সেখানে অভিযান চালায়। এ সময় ১০/১২ জনের নৌ-ডাকাত দল পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে।

আত্মরক্ষার্থে পুলিশও শর্টগান দিয়ে পাল্টা ১০/১২ রাউন্ড রাবার বুলেট ছোড়ে। এতে মোতালেব ও লিটন রাবার বুলেট বিদ্ধ হয়। এ অবস্থায় পুলিশ তাদের আটক করলেও বাকিরা পালিয়ে যায়।

আহতদের উদ্ধার করে সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ সময় দেশীয় অস্ত্রসহ তাদের নৌকাটি জব্দ করা হয়।

মেছড়া ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি বাদশা আলমের দাবি, রাবার বুলেট বিদ্ধদের মধ্যে মোতালেব মেছড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্র ও শাহাদৎ ইটভাটার শ্রমিক। তারা কেউ ডাকাতির সঙ্গে জড়িত নয়। তবে মোতালেবের বাবা আয়নালের নামে একাধিক ডাকাতির মামলা ছিল বলেও জানান তারা।

আহত মোতালেবের ভাই স্বপন জানান, তার ভাই স্কুলে পড়াশোনার পাশাপাশি নিজেদের নৌকা নিয়ে যাত্রী পারাপার করে। যাত্রী নিয়ে সিরাজগঞ্জ নামিয়ে দিয়ে ফেরার পথে এ ঘটনা ঘটে।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাবিবুল ইসলাম জানান, আটক দু’জনের বিরুদ্ধে যমুনার চরে একাধিক নৌ-ডাকাতি সংগঠিত করার অভিযোগ রয়েছে। সম্প্রতি কাজিপুরের নাটুয়ারপাড়া চরে পাট ব্যবসায়ীদের নৌকায় ডাকাতি করে প্রায় ১৫ লাখ টাকা লুট করা হয়। এ ঘটনার সঙ্গে এদের সম্পৃক্ততা রয়েছে বলে পুলিশের ধারণা। এ বিষয়ে সদর থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।






মন্তব্য চালু নেই