মেইন ম্যেনু

সিরিয়া সীমান্তে নিরাপত্তা জোরদারের অঙ্গীকার তুরস্কের

আত্মঘাতী বোমা হামলায় কমপক্ষে ২৭ জন নিহত হওয়ার পর সিরিয়া সীমান্তে নিরাপত্তা জোরদারের অঙ্গীকার করেছে তুরস্ক। সিরিয়া সীমান্তবর্তী সুরুক শহরে সোমবারের হামলায় ওই প্রাণহানীর পর এ ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী আহমেত দাভোতগলু।

ওই হামলার সঙ্গে ইসলামিক স্টেট (আইএস) জড়িত বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে বলে জানিয়েছেন দাভোতগলু।

রাজধানী আঙ্কারায় এক সংবাদ সম্মেলনে দাভোতগলু জানান, ইসলামিক স্টেটের বিরুদ্ধে তুরস্ক এরইমধ্যে প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা নিয়েছে। এইসব ব্যবস্থা অব্যাহত থাকবে।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরও বলেন, ‘আমরা সন্ত্রাসী কার্যক্রমের মুখোমুখি দাঁড়িয়ে। এসব কার্যক্রমের সঙ্গে জড়িতদের খুঁজে বের করে শাস্তির মুখোমুখি করার ইচ্ছা শক্তি আমাদের আছে।’

সুরুক শহরের একটি সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের উদ্বোধন উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলন চলাকালে ওই হামলা চালানো হয়। আইএসের এক নারী সদস্য ওই হামলা চালিয়েছেন বলে তদন্তকারীরা ধারণা করছেন। তবে তাৎক্ষণিকভাবে হামলার দায় কেউ স্বীকার করেনি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, ইস্তাম্বুল থেকে আসা স্বেচ্ছাসেবকদের লক্ষ্য করে ওই হামলা চালানো হয়েছে। স্বেচ্ছাসেবকরা পাশের সিরিয়ার কোবানি শহরে ত্রাণ নিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন।

তুরস্ক সীমান্ত থেকে ১০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত কোবানি শহরটি দীর্ঘদিন ধরে ঘিরে রেখেছে আইএস বিদ্রোহীরা। সিরিয়ার অন্তত ২০ হাজার শরণার্থী তুরস্কের ওই সুরুক শহরে অবস্থান করছেন। সূত্র : বিবিসি






মন্তব্য চালু নেই