মেইন ম্যেনু

সুখী দম্পতিরা ঝগড়ার সময় যা করেন না

ঝগড়া কমবেশি সব দম্পতির মধ্যেই হয়ে থাকে। তবে যাঁরা সুখী তাঁরা ঝগড়াকে খুব বেশি মুখ্য মনে করেন না। এমনকি ঝগড়া দ্রুত থামানোর জন্য দুজনই চেষ্টা করেন। আবার ঝগড়ার সময়ও তাঁরা কিছু বিষয় খেয়াল রাখেন। যাতে ঝগড়া দীর্ঘস্থায়ী না হয়। জানতে চান সেগুলো কী কী? তাহলে রিডার্স ডাইজেস্টের এই তালিকাটি একবার দেখে নিতে পারেন।

১. সুখী দম্পতিরা ঝগড়ার পর নিজেরাই সবকিছু ঠিকঠাক করার চেষ্টা করেন। যাতে বাড়াবাড়ি পর্যায়ে না যায়। কারণ রাগের সময় অনেক কিছুই ঘটে থাকে। তাঁরা কখনোই চান না ঝগড়ার এই বিষয়গুলো তাঁদের সম্পর্কের ওপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলুক।

২. ঝগড়ার সময় এঁরা এমন কোনো কথা বলেন না, যা তাঁর সঙ্গীকে কষ্ট দেয়। কারণ রাগের মাথায় মানুষ অনেক পুরোনো কথা টেনে নিয়ে আসে। যা পরবর্তীতে নিজেদের মনের মধ্যে সন্দেহ তৈরি করে।

৩. এঁরা একজন আরেকজনের ওপর দোষ চাপান না। এটা সত্যি যে যে কোনো একজনের দোষেই ঝগড়া হয়। তবু তাঁরা দোষ চাপানোর উদ্দেশ্যে ঝগড়া করেন না। বরং সমাধানের উপায় খোঁজার চেষ্টা করেন।

৪. সত্যিটাকে মেনে নিতে এঁদের কেউ দ্বিধা প্রকাশ করেন না। দোষ স্বীকার করতে না চাইলেও বিষয়টি বোঝার চেষ্টা করেন। মাঝামাঝি কোনো একটা সিদ্ধান্ত নেন, যাতে দুই পক্ষই শান্ত থাকে।

৫. একজন অন্যজনকে ছোট করার জন্য তাঁরা ঝগড়া করেন না। কারণ তাঁদের মধ্যে ভালোবাসাটা অনেক প্রখর। শ্রদ্ধাবোধও বেশি। এ কারণে তাঁরা সঙ্গীকে অপমান করার চেষ্টা করেন না।

৬. ভুল যাঁরই হোক, কেউ একজন অবশ্যই এগিয়ে আসবেন সমাধানের জন্য। এটাই সুখী দম্পতির লক্ষণ। কারণ তাঁদের উদ্দেশ্য ঝগড়া ধরে রাখা না। তাঁরা চান সুখে-শান্তিতে থাকতে। তাই যত দ্রুত সম্ভব ঝগড়ার সমাধান করার চেষ্টা করেন।






মন্তব্য চালু নেই