মেইন ম্যেনু

সুন্দরবনে দুই শাবকসহ বাঘিনীর আনাগোনা!

সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা তত্ত্ব নিয়ে যখন বহুমুখী জরিপ ও গবেষণা চলছে তখন এক বাঘিনী তার দুই শাবককে নিয়ে কৌতুহলী মানুষের চোখে ধরা দিলো। বেশ তিন চার দিন ধরে বাঘিনীটিকে তার শাবকসহ অগভীর বনের মধ্যে ঘোরাফেরা করতে দেখা গেছে।

প্রত্যক্ষদশী সাতক্ষীরার শ্যামনগরের মুন্সিগঞ্জের সোহরাব হোসেন জানান, সুন্দরবন বন বিভাগের মুন্সিগঞ্জ ফরেস্ট স্টেশন সংলগ্ন চুনা নদীর ওপারে বাঘিনীকে কখনও রাতে কখনও ভোরে আবার কখনও ভরদুপুরে নিরীহ প্রাণীর মতো ঘুরে বেড়াতে দেখা গেছে।

তিনি বলেন, অল্পক্ষনের জন্য দেখা গেলেও বাঘিনী তার ইচ্ছামতো লোকচক্ষুর মধ্যে আসে। চাইলেই সব সময় তাদের দেখা মিলছেও না।

স্থানীয় বনজীবীরা বলেন এখন অর্থাৎ আষাঢ় শ্রাবন মাস বাঘ বাঘিনীর প্রজনন সময়। এ সময় বাঘ তার সঙ্গিনীকে কাছে পেতে ব্যাকুল হয়ে ওঠে। বনে হাক দেয়। হাক শুনে বাঘিনীও তাতে সাড়া দেয়। পরে তারা প্রজননক্রিয়া সম্পাদন করে। তারা বলেন মুন্সিগঞ্জের বনে ঘোরাঘুরি করলেও বাঘিনী তার সঙ্গী বাঘকে কিন্তু পায়নি। এমনকি বনে বাঘের কোনো হুংকারও শোনা যায়নি অনেকদিন।

সুন্দরবনের সাতক্ষীরা রেঞ্জের সহকারি বন সংরক্ষক ( এসিএফ) শোয়েব খান বলেন, ‘চুনা নদীর ওপারে মুন্সিগঞ্জ বন বিভাগের একটি পুরনো পরিত্যক্ত ভবনের কাছে বাঘিনীকে কয়েকদিন ধরে দেখা যাচ্ছে। তবে সে যেমন কারও কোনো ক্ষতি করছে না। তেমনি তাকে হাক দিতেও শোনা যায়নি’।

এটা খুবই স্বাভাবিক উল্লেখ করে তিনি বলেন বাঘিনী পুরুষ বাঘের কবল থেকে শাবকদের রক্ষার জন্য তাদের সাথে করে নিয়ে বেড়াচ্ছে।

তিনি আরও বলেন নিকটে কোথাও না কোথাও বাঘ রয়েছে। তার কবল থেকে শাবকদের রক্ষার জন্য মা বাঘটি শাবকদের সাথে নিয়ে লোকালয়ের ধারে অবস্থান নিয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই