মেইন ম্যেনু

সুন্দরী তুমি কার?

বয়স ষোলো কি আঠারো হবে। গায়ের রং ফর্সা। ছিমছাম গড়ন। এক কথায় হলদে পাখি। দেখে মনে হচ্ছে কারো জন্য অপেক্ষা করছে তরুণীটি। ওদিকে সুন্দরী মেয়েকে একা বসে থাকতে দেখে দুষ্টুদের কৌতুহলের শেষ নেই। ভাবখানা এমন সুন্দরী তুমি কার? তাকে উদ্দেশ্য করে মনে হয় কিছু বলাও হচ্ছে। কিন্তু তাতে ললনার কোনো প্রতিক্রিয়া নেই। প্রতিক্রিয়া না হওয়ারই কথা! কারণ এই সুন্দরী নারীটি কোনো মানবী নয়। রোবট।

হ্যা, গবেষকরা নতুন এক রোবট আবিষ্কার করেছে যা দেখতে সুন্দরী তরুণীর মত। মানুষের শরীরের মতোই তার শরীর। তার রয়েছে আকর্ষণীয় চুল। এই রোবটটি আপনার সাথে হাত মেলাবে। যখন সে আপনাকে অভিনন্দন জানাবে, তখন সে হাস্যোজ্জ্বল চেহারায় থাকবে। আপনার চোখের দিকে তাকিয়ে কথা বলবে। প্রথমবার দেখাতেই সেটি আপনার নাম মনে রাখবে। এমনটি শেষবার আপনার সঙ্গে রোবটির কি কথা হয়েছিল তা জানিয়ে দিতে পারবে।

সিঙ্গাপুরের নানিইয়াং টেকনোলজিক্যাল ইউনিভার্সিটি (এনটিইউ) বিজ্ঞানীরা নতুন এই সামাজিক রোবট আবিষ্কার করেছেন। নাদিনি নামের এই রোবটটিকে রিমোট দ্বারা নিয়ন্ত্রণ করা যায়। কোন সম্মেলনে রোবটটি আপনার প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করতে সক্ষম।

নান্দিনি রোবট হলেও তার নিজস্ব ব্যক্তিত্ব রয়েছে। রয়েছে মেজাজ এবং আবেগ। আপনার আলাপ চারিতার ওপর নির্ভর করবে সে খুশি হবে না বিরক্ত হবে।

অত্যাধুনিক সফটওয়্যার অ্যাপলের সিরি অথবা মাইক্রোসটের কর্টানার মতো সফটওয়্যার দিয়ে নাদিনিকে পরিচালিত করা যাবে।

এই রোবটটিকে যে কোনো অফিসের অভ্যর্থনাকারী অথবা ব্যক্তিগত সহকারি হিসেবে ব্যবহার করা যাবে। যুবক অথবা বৃদ্ধ যে কোনো বয়সী লোকের সাথে খুব দ্রুত রোবটিটি ভাব জমিয়ে ফেলতে পারে।

নান্দিনির উদ্ভাবক এনটিইউর ইন্সটিটিউট ফর মিডিয়া ইনোভেশনের পরিচালক নাদিয়া থালমান বলেন,‘গত কয়েক দশকে রোবট বিজ্ঞানের অভূতপূর্ব উন্নতি হয়েছে। ইতোমধ্যে রোবট উৎপাদন এবং সরবরাহের কাজেও ব্যবহৃত হচ্ছে।’



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই