মেইন ম্যেনু

সুন্দরী স্ত্রী দিয়ে প্রেমের ফাঁদ, অতপর….

রাজশাহীতে এক ব্যবসায়ীকে মুক্তিপণের জন্য আটকাবস্থা থেকে উদ্ধার করেছে র‌্যাব। আবদুর রহিম (৩৩) নামের ওই ব্যক্তিকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে বাড়িতে ডেকে নিয়ে আটকে রাখা হয়েছিল। এ সময় অপহরণকারী চক্রের মূল হোতা এক নারীসহ চারজনকে আটক করে র‌্যাব।

গতকাল রোববার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে রাজশাহী নগরীর ডিঙ্গাডোবার একটি বাসা থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়। পরে মোবাইলে আপত্তিকর ছবি ও ভিডিও ধারণ করে দেড় লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করা হয়েছিল। উদ্ধার হওয়া আবদুর রহিম জেলার গোদাগাড়ী উপজেলার কাশিমপুর গ্রামের লোকমান আলীর ছেলে। আটকেরা হলেন- নগরীর ডিঙ্গাডোবার আবদুর রাজ্জাকের স্ত্রী শোভা খাতুন (২৩), ভদ্রা এলাকার শহর আলীর ছেলে মো: জাহিদ (৩০),

শিরোইল এলাকার খালেক মাতবরের ছেলে আকবর আলী (১৮) এবং একই এলাকার আইয়ুব আলীর ছেলে মো: ডলার (১৯)।

র‌্যাব জানায়, ভিকটিম আব্দুর রহিমের সাথে অপহরণকারী চক্রের মূল হোতা শোভা খাতুনের মোবাইলে পরিচয় হয়। এরই পরিপ্রেেিত শোভা খাতুন ভিকটিমকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে গত শনিবার নিজ বাসায় ডেকে নিয়ে আসেন। সেখানে আগে থেকেই ওঁৎ পেতে থাকা জাহিদ, আকবর ও ডলার ভিকটিমকে জোরপূর্বক আটকে রাখেন।

এ ছাড়া বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখিয়ে শোভা খাতুনের সাথে ভিকটিম আব্দুর রহিমের অশ্লীল ছবি ও ভিডিও মোবাইলে ধারণ করেন। এরপর অপহরণকারী চক্র ভিকটিমের মোবাইল থেকে তার স্ত্রী ও ভাইয়ের কাছে ফোন করে এক লাখ ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করেন। মুক্তিপণের টাকা না দিলে ভিকটিমকে প্রাণনাশের হুমকিসহ ওই অশ্লীল ভিডিও ইন্টারনেটে প্রকাশ করার হুমকি দেন।

র‌্যাব আরো জানায়, এই অবস্থায় ভিকটিমের পরিবার আইনগত ও দ্রুত সাহায্যের জন্য র‌্যাব-৫, রাজশাহীতে একটি অভিযোগ করে। এ অভিযোগ পাওয়ার পরপরই র‌্যাব-৫, রাজশাহীর রেলওয়ে কলোনি ক্যাম্পের একটি দল স্কোয়াড্রন লিডার কে বি এম মোবাশ্বের রহিমের নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে নগরীর রাজপাড়া থানার ডিঙ্গাডোবার বাড়ি থেকে অপরহরণকারী চক্রের ওই চার সদস্যকে আটক করে। এ সময় তাদের কাছে থেকে অপহৃত ভিকটিম আব্দুর রহিমকে উদ্ধার করতে সম হয় র‌্যাব। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে র‌্যাব জানিয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই