মেইন ম্যেনু

সুন্দর অথচ ভয়ঙ্কর কিছু প্রানী

এই পৃথিবী বিস্ময়ে পরিপূর্ণ। বিভিন্ন আকারের, বিভিন্ন বর্ণের ও বিভিন্ন ক্ষমতার প্রানী আছে এখানে। তারা বিস্ময়েরর অনুভূতিকে উৎসাহিত করে তাদের সৌন্দর্য অথবা কলঙ্ক দিয়ে। কিন্তু এমন কিছু সুন্দর ও আকর্ষণীয় প্রাণী আছে যারা বিস্ময়করভাবেই বিপদজনক। আসুন জেনে নিই এমনই কিছু বিস্ময়কর অথচ ভয়ংকর কিছু প্রাণীর কথা।

১। কেসোয়ারী

এটি এমু জাতীয় বৃহৎ পাখি যারা উড়তে পারেনা। নিউগিনি ও অস্ট্রেলিয়ার উত্তর পূর্বাংশে বাস করে। এদের উচ্চতা ৭৯ ইঞ্চি পর্যন্ত হতে পারে। এরা উট পাখির মত দেখতে। এদের শরীর কালো রঙের পালকে আবৃত থাকে, মাথা নীলাভ ও ঘাড় লাল রঙের হয়। আশ্চর্যজনক বিষয় হচ্ছে এই পাখির মেজাজ পরিবর্তনের সাথে সাথে এদের এই বর্ণের পরিবর্তন হয়। মেয়ে পাখি ছেলে পাখির চেয়ে বড় ও উজ্জ্বল রঙের হয়। এদের মাথায় ঝুঁটি থাকে যাকে কেস্কু বলে। এই ঝুঁটির জন্য একে যোদ্ধার মত মনে হয়। এই নির্লিপ্ত প্রাণীটি ভয়ংকর হয়ে উঠে যখন সে আক্রমণাত্মক মুডে থাকে। এর পাখির পায়ের ৩টি আঙ্গুলের বড়, সোজা ও তীক্ষ্ণ নখ দিয়েই এরা আক্রমণ করে থাকে। এই পাখি আপনার পেছনে তাড়া করবে এবং পদাঘাত করবে, ভয় দেখানো হলে আপনার পেট চিরে নাড়িভুঁড়ি বের করে ফেলবে।

২। স্লো লরিস

এই বিপন্নপ্রায় ছোট প্রাণীটি বড় চোখ ও মিষ্টি চেহারার অধিকারী। এটি দক্ষিণ ফিলিপাইন, ভারত, বাংলাদেশ, ইন্দোনেশিয়া, ভিয়েতনাম, দক্ষিণ চীন এবং থাইল্যান্ডে বাস করে। এদের কনুই এর ভিতরের দিকে এক ধরণের গ্রন্থি থেকে বিষাক্ত বিষ নিঃসৃত করে। এই বিষ পেটে গেলে চরম পেট ব্যথা হয়। এরা শিকারি প্রাণীর কাছ থেকে এদের বংশধরদের রক্ষার জন্য বাচ্চার গায়ে এই এই বিষ মাখিয়ে রাখে। এই প্রাণীর কামড়ে ব্যথা হয়ে ফুলে যায়। এদের বিষ হালকা হলেও এনাফাইলেটিক শকের জন্য মানুষের মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে।

৩। মেরু ভাল্লুক

এরা বৃহত্তম স্থলজ মাংসাশী প্রানী যারা উত্তর মেরুতে থাকে। এরা সাইবেরিয়ান বাঘের চেয়ে দ্বিগুণ বড়। যদিও এরা আক্রমণাত্মক তথাপি এরা যুদ্ধ এড়িয়ে পলায়ন করতেই পছন্দ করে। এরা বৃত্তাকার ও শ্মশ্রুধারী সীল খেয়ে থাকে। এরা প্রতিবছর ২০-৯০ জন মানুষ আক্রমণ করে। পুরুষ মেরু ভালুক আপাতদৃষ্টিতে ১২ ইঞ্চি চওড়া একটি সীলকে চিড়ে ফেলতে পারে কলার খোসা ছাড়ানোর মতোই।

৪। উলভেরাইন

উলভেরাইন গাঁট্টাগোট্টা, লোমশ ও পেশীবহুল পশু। এদের পা ছোট, মাথা বড় ও গোলাকার, চোখ ছোট ছোট এবং ছোট ও গোলাকার কান থাকে। এটি ছোট ও আকর্ষণীয় ভালুকের মতোই দেখতে যাকে দেখলে জড়িয়ে ধরতে ইচ্ছে করবে। এক্স ম্যান কমিক্স ও মুভির কল্যাণে আমরা এর আক্রমণাত্মক আচরণের কথা জানি। এর হিংস্রতা ও শক্তিমত্তার অনুপাত এর দেহের আকারের মতোই। এটি শিকারকে মেরে ফেলতে পারে।

এছাড়াও অস্ট্রেলিয়ান বক্স জেলিফিশে ৬০ জন মানুষকে মেরে ফেলার মত বিষ থাকে, পয়জন ডার্ট ফ্রগ এর বিষাক্ততা মানুষের জন্য মারাত্মক হতে পারে এবং পোষা প্রানীর জন্য আরো বেশি মারাত্মক হতে পারে, ডিঙ্গো হিংস্র বন্যপ্রাণী যারা শিকারের গলায় কামড়ে দেয়। রাজহাঁস তার বাচ্চাদের রক্ষার জন্য উড়ে গিয়ে আক্রমণ করে এবং কামড় দিয়ে মাংস ছিঁড়ে ফেলে।






মন্তব্য চালু নেই