মেইন ম্যেনু

সুন্দর জীবনের খোঁজে তিন্নি

গেল ২৫ নভেম্বর নিজের জন্মদিনে স্বামীর কাছ থেকে দারণ একটা জুয়েলারি সেট উপহার পান মডেল ও অভিনেত্রী শ্রাবস্তী দত্ত তিন্নি। নতুন সংসার গড়ার পর এটাই প্রথম জন্মদিন উদ্‌যাপন। স্বামীর সঙ্গে সারাদিন বাইরে কাটানোর পর চমৎকার উপহারও পেয়েছেন।

এ প্রসঙ্গে তিন্নি বলেন, জন্মদিনটা বেশ ভালোই কেটেছে এবার। সাদের (স্বামী) কাছ থেকে একটা জুয়েলারি সেট উপহারও পেয়েছি। ঘোরাফেরাসহ নানা কাজের মাধ্যমে দিনটি কিভাবে কেটে গেছে বুঝতেই পারলাম না। অনেকদিন পর এমন একটি দিন কাটলো।

এদিকে দীর্ঘদিন পর অক্টোবর মাসে তার মা কস্তুরী দত্ত মজুমদারের প্রযোজনায় ‘একই বৃন্তে’ নামে একটি খণ্ড নাটকে অভিনয়ও করেন। এছাড়া, ২০শে নভেম্বর সিজেএফবি’র অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে দেবাশীষ বিশ্বাসের সঙ্গে উপস্থাপনায় দেখা যায় তাকে। এভাবে টুকটাক নয়, পুরোদমে আবার নতুন করে কাজ শুরু করতে চান তিন্নি। এর আগে নাটকের পাশাপাশি নিজের নাম লিখিয়েছিলেন বাণিজ্যিক চলচ্চিত্রেও। নায়ক হিসেবে প্রথম ছবিতে সহশিল্পী হিসেবে পান শাকিব খানকে। সোহানুর রহমান সোহানের ‘সে আমার মন কেড়েছে’ চলচ্চিত্রে তিন্নির অভিনয়ও সবার কাছে প্রশংসিত হয়েছিল। মাঝে বছরের নানা সময়ে ছোট ও বড়পর্দার দাপুটে এই অভিনেত্রীর নামে সংবাদমাধ্যমে নানা খবর প্রকাশ হয়। তবে শুধু এভাবে খবরের শিরোনামে থাকতে চান না তিনি।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, শুধু খবরের শিরোনামে নিজেকে দেখতে চাই না। আবারও নতুন করে কাজ শুরু করতে চাই। আমার কাছে একটি আর্ট ফিল্মের স্ক্রিপ্ট এসেছে। তাদের সঙ্গে কথাও চলছে। দেখা যাক, সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে এটা করতে চাই। তবে এটা নিশ্চিত কোনো বাণিজ্যিক ছবিতে আর অভিনয় করব না। মাদকাসক্তি, অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপন, গৃহবন্দি, মাদকাসক্তি নিরাময় কেন্দ্রাবাস ও নিত্যনতুন সম্পর্কের খবর ছড়িয়ে পড়ার ঘটনা ভুলে যেতে চান। হতাশা থেকে এসবের সৃষ্টি বলে মনে করেন তিনি।

নিয়মিত কাজ করতে চেয়েও না পারার কারণ হিসাবে তিনি বলেন, নিয়মিত কাজ করতে চেয়েছিলাম, কিন্তু কাজ করতে গিয়ে নানা সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়েছে। পারিশ্রমিক কমানো থেকে শুরু করে নানা আবদার শুনতে হয়েছে। আমি কাউকে সুযোগ দিয়ে কাজ করিনি কখনও, এখনও করতে চাই না। শুটিং করতে গিয়ে দেখা গেছে, সেখানে নতুন শিল্পীদের যেভাবে মূল্যায়ন করা হচ্ছে, আমাকে তা করা হচ্ছে না। শুটিংয়ের সময় নির্মাতাদের আচরণ দেখে মনে হয়েছে, আমি যেন হারিয়ে গেছি, তারা আমাকে দয়া করে কাজ দিচ্ছেন। এসব কারণে কাজের আগ্রহ থাকলেও কাজ করতে গিয়ে মনটা খারাপ হয়ে যায়।

এত কিছুর পরও “শতভাগ সততা দিয়ে নিয়মিত কাজে ফিরতে চাই” বলে জানান তিনি।

তিনি বলেন, এতদিন আমি কাজ না করে অনেক ভুল করেছি। সময় হলে দর্শক আবার সেই তিন্নিকে দেখতে পাবেন বলে আশা করছি। আর সবশেষে একজন ভালো গৃহিণী শুধু না, ভালো মাও হতে চান এই তারকা। একটা সুন্দর জীবন চান তিন্নি। যে জীবনে কোনো কষ্ট থাকবে না, পোহাতে হবে না কোনো ঝামেলা। সেই জীবনের স্বপ্ন নিয়ে ছুটছেন এখন।






মন্তব্য চালু নেই