মেইন ম্যেনু

সেই স্কুল আজও এমপিওভুক্ত হয়নি, ছাত্র এখন ঢাবি শিক্ষক

কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার আমলা ইউনিয়নের নিভৃত পল্লী অঞ্জনগাছী গ্রামে ২০০০ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় অঞ্জনগাছী মাধ্যমিক বিদ্যালয়। যে বিদ্যালয়ে পড়ে আসাদুজ্জামান কাজল আজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক হওয়ার অনন্য কৃতিত্ব দেখিয়েছেন।

অথচ সেই অঞ্জনগাছী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নির্মম বাস্তবতা এই যে, আজও বিদ্যালয়টি এমপিওভুক্ত হয়নি।

বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষক গোলাম সরোয়ার জানান, আমাদের প্রতিষ্ঠানের অনেক শিক্ষার্থী আজ দেশের অনেক গুরুত্বপূর্ণ পদে কর্মরত আছেন। যাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য আসাদুজ্জামান কাজল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক। তিনি আরও বলেন, এমপিওভুক্ত না হওয়ায় বিদ্যালয়ের ১৫ জন শিক্ষক-কর্মচারী নিয়ে ১৬ বছর ধরে মানবেতর জীবন-যাপন করছি। পাশাপাশি বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পাঠদান করানো রীতিমত কষ্টকর হয়ে পড়েছে।

আসাদুজ্জামান কাজল উপজেলার আমলা ইউনিয়নের অঞ্জনগাছী গ্রামের স্কুল শিক্ষক আশরাফ আলীর ছেলে। মায়ের নাম আনোয়ারা খাতুন। কাজল উপজেলার কচুয়াদহ প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত, পরবর্তীতে ৬ষ্ঠ শ্রেণি থেকে ৮ম শ্রেণি পর্যন্ত অঞ্জনগাছী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে, আমলা-সদরপুর বহুমুখী মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে এসএসসি, কুষ্টিয়া সরকারি কলেজ থেকে এইচ এস সি পরীক্ষায় কৃতিত্বের সঙ্গে পাশ করেন।

তারপর ভর্তি হন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগে। এখানে তিনি ফার্স্টক্লাস সেকেন্ড হওয়ার অনন্য কৃতিত্ব দেখান এবং চলতি বছরের ২৬ জানুয়ারি কাজল একই বিশ্ববিদ্যালয়ের একই বিভাগের শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ পান।






মন্তব্য চালু নেই