মেইন ম্যেনু

সেদিন ৩১ বলে এবি ডি ভিলিয়ার্সের দ্রুততম সেঞ্চুরি নাও হতে পারত

দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটার এবি ডি ভিলিয়ার্সের দ্রুততম সেঞ্চুরির রেকর্ড নাও হতে পারত! এবি ৩১ বলে করেছিলেন তার দ্রুততম সেঞ্চুরি। সেদিন এবি ডি ভিলিয়ার্স ওয়েস্ট ইন্ডিজের বোলারদের মাথাই নষ্ট করে দেন।

জোহানেসবার্গের নিউ ওয়ান্ডারার্স স্টেডিয়ামে ২০১৫ সালের ১৮ জানুয়ারি তিনি করেছিলেন এই কীর্তি। সেদিন ওয়েস্ট ইন্ডিজের বোলারদের চোখের জল নাকের জল এক করে ছাড়েন এবি ডি ভিলিয়ার্স। দক্ষিণ আফ্রিকান ব্যাটসম্যান সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে মাত্র ৩১ বলে তুলে নেন সেঞ্চুরি, গড়েন ওয়ানডে ক্রিকেটে দ্রুততম সেঞ্চুরির বিশ্ব রেকর্ড।

ওই ম্যাচে ডি ভিলিয়ার্স তিন নম্বর ব্যাটসম্যান হিসেবে যখন ক্রিজে এলেন, ৩৮.৩ ওভারে দক্ষিণ আফ্রিকার স্কোর ১ উইকেটে ২৪৯। ১০ ওভার পর তিনি যখন ক্রিজ ছাড়লেন, তার নামের পাশে ৪৪ বলে ১৪৯ রান! ৯টি চারের সঙ্গে ১৬টি ছক্কা। ৫০ ওভারে দক্ষিণ আফ্রিকা তুলেছিল ২ উইকেটে ৪৩৯ রান।

তবে ডি ভিলিয়ার্সের দ্রুততম সেঞ্চুরির বিশ্ব রেকর্ডটা সেদিন নাও হতে পারত! ভাবছেন, এটা আবার কেমন কথা? হ্যাঁ, তা-ই। সেদিন যে তিন নম্বরে নামতেই চাননি ডি ভিলিয়ার্স!

সেদিন ইনিংসের শুরু থেকেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বোলারদের ওপর চড়াও হন দুই ওপেনার হাশিম আমলা ও রাইলি রুশো। দুজনই ছুঁয়ে ফেলেন তিন অঙ্ক। অধিনায়ক ডি ভিলিয়ার্স চেয়েছিলেন, তিন নম্বরে ব্যাটিংয়ে নামুক ডেভিড মিলার। এ নিয়ে কোচ রাসেল ডোমিঙ্গোকে দুই-দুবার অনুরোধও করেছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকান অধিনায়ক।

ভালো যে, ডোমিঙ্গো সেদিন অধিনায়কের অনুরোধটা রাখেননি। রাখলে ভিলিয়ার্সের বিশ্ব রেকর্ড গড়া সেঞ্চুরিটি হয়তো নাও দেখতে পেত ক্রিকেট বিশ্ব!

ম্যাচটি নিয়ে সম্প্রতি প্রকাশিত হওয়া নিজের আত্মজীবনী, ‘এবি : দ্য অটোবায়োগ্রাফি’তে ডি ভিলিয়ার্স লিখেছেন, ‘আমাদের স্কোর বিনা উইকেটে ২০০ ছাড়ানোর পর চেঞ্জিং রুমে আমি কোচ রাসেল ডোমিঙ্গোকে বলেছিলাম, পরের ব্যাটসম্যান হিসেবে ডেভ মিলার যাক। এটা ওর জন্য সঠিক হবে। প্রত্যুত্তরে সে (কোচ) বলেছিল, “না আব্বাস, পরের ব্যাটসম্যান হিসেবে তুমিই যাবে”।’

স্কোর ২২০ ছাড়ানোর পর অনুরোধটা কোচকে আরো একবার করেছিলেন ডি ভিলিয়ার্স, ‘আমলা ও রুশো তখন ভালো করছিল, প্রভাব বিস্তার করছিল। আমি আরেকবার চেষ্টা করলাম। বললাম, কোচ, আমি কিন্তু সিরিয়াস। পরের ব্যাটসম্যান হিসেবে ডেভকে যেতে হবে। ডোমিঙ্গোর জবাব ছিল, “না, এই পরিস্থিতিতে তুমিই সেরা ব্যক্তি”।’দক্ষিণ আফ্রিকান কোচ সেদিন ঠিকই বলেছিলেন!






মন্তব্য চালু নেই