মেইন ম্যেনু

সেরে উঠছেন লে. জে. মাহবুব

দ্রুত সেরে উঠছেন সড়ক দুর্ঘটনায় আহত বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) মাহবুবুর রহমান এবং তার স্ত্রী আহত অধ্যাপক নাদিরা মাহবুব। মাথার আঘাত গুরুতর না হওয়ায় দুই-একদিনের মধ্যে তাদের রিলিজ দেয়া হতে পারে।

তারা ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালের (সিএমএইচ) নিউরো সার্জন ডা. কর্নেল আমিনুল ইসলামের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন। বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান বাংলামেইলকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

গত শনিবার (২৫ জুন) সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হন লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) মাহবুবুর রহমান। দিনাজপুরের বাসা থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওয়ানা হয়ে নিজের গাড়িতে করে স্ত্রীকে নিয়ে সৈয়দপুর বিমানবন্দরে যাচ্ছিলেন তিনি। কিন্তু দিনাজপুর-সৈয়দপুর সড়কের দশমাইল এলাকায় পৌঁছালে নসিমনের সঙ্গে ধাক্কা লাগে। এ সময় তিনি ও তার স্ত্রী অধ্যাপিকা নাদিরা মাহবুবের মাথায় ‘গুরুতর’ আঘাত লাগে।

এরপর তাদের উদ্ধার করে দ্রুত দিনাজপুর হার্ট ফাউন্ডেশনে নিয়ে যাওয়া হয়। দুর্ঘটনায় জেনারেল মাহবুব অজ্ঞান হয়ে পড়লেও হাসপাতালে নেয়ার পর তার জ্ঞান ফেরে। চিকিৎসকরা তখন বাংলামেইলকে জানিয়েছিলেন, ‘নাদিরা মাহবুব কিছুটা সুস্থ আছেন। মাহবুবুর রহমানের সিটি স্ক্যান করা হয়েছে। তবে ৭২ ঘণ্টার আগে কিছু বলা যাবে না।’

উন্নত চিকিৎসার জন্য পরদিন রোববার দিনাজপুর হার্ট ফাউন্ডেশন থেকে ভাড়া করা হেলিকপ্টারে করে জেনারেল মাহবুবকে সিএমএইচে আনা হয়। নাদিরা মাহবুবকেও সেখানে ভর্তি করা হয়।

জেনারেল মাহবুব এবং তার স্ত্রীকে দেখতে ও তাদের চিকিৎসার খোঁজ-খবর নিতে সোমবার সিএমএইচে যান বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও তার স্ত্রী রাহাত আরা বেগম, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ ও চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অব.) রুহুল আলম চৌধুরী।

বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াও তাদের চিকিৎসার খোঁজ-খবর নিচ্ছেন। ঢাকাস্থ চীনা দূতাবাসও তাদের চিকিৎসার খোঁজ-খবর নিয়েছে।

বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের মাধ্যমে চিকিৎসার খোঁজ-খবর নেয়ায় সাংবাদিকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন দলটির স্থায়ী কমিটির এ সদস্য। দেশবাসীর দোয়ায় বড় ধরনের বিপদ থেকে রক্ষা পাওয়া এবং দ্রুত সেরে ওঠায় তাদের প্রতিও কৃতজ্ঞতা জানান জেনারেল (অব.) মাহবুব।






মন্তব্য চালু নেই