মেইন ম্যেনু

সোনা বাবার কাণ্ড দেখুন!

তিনি একজন সন্যাসী। স্বাভাবিকভাবেই সাধু সন্যাসীদের পার্থিব জগতের কোনো কিছুতে লোভ থাকার কথা নয়। তারা হবেন নির্লোভ, নির্লিপ্ত এবং জাগতিক সব ধরনের আরাম আয়েশের উর্ধ্বে। তারা পরবে চট বা ছালা। সারা গায়ে ছাই ভস্ম মেখে ঘুরে বেড়াবে। এজন্য সাধুদের কোনো নিরাপত্তা বা পুলিশি পাহারার দরকার পড়ে না। কিন্তু এখন তো সে যুগ নাই। এখন সাধুদেরও পুলিশি পাহারার দরকার হয়!

এ যুগের উপযুক্ত সাধু হচ্ছেন হরিদ্বরের গোল্ডেন বাবা। এই সাধু স্বর্ণালঙ্কার ভালোবাসেন। এ কারণেই তার গোটা শরীরে শোভা পাচ্ছে অসংখ্য গয়না। তাকে দেখলে মনে হয়, যেন একটা আস্ত জুয়েলারির দোকান হেঁটে চলেছে। তার গায়ে যেসব অলঙ্কার রয়েছে সেগুলোর দাম হবে কমপক্ষে আড়াই কোটি রুপি। এ কারণেই লোকে তার নাম দিয়েছে গোল্ডেন বাবা বা সোনা বাবা।

সম্প্রতি সোনা বাবা আগ্রা থেকে উজ্জয়িনীর বিখ্যাত কুম্ভমেলায় যোগ দেয়ার ইচ্ছা করেন। কিন্তু চাইলেই তো আর যাওয়া সম্ভব নয়। তিনি তো আর যে সে সাধু নন! তার গা ভরা গয়না। এর লোভে কোনো ডাকাত যদি তার পিছু নেয়। কিংবা কোনো লোভী যদি তাকে খুন করে। তাই পুলিশের শরণাপন্ন হলেন। আগ্রা পুলিশ তাকে পুলিশি সহায়তা দিতে রাজি হয়। গত ২১ মে পুলিশি পাহারায় তিনি ওই কুম্ভমেলায় অংশ নেন। সাধুদেরও তাহলে পুলিশি নিরাপত্তার দরকার হয়! দিনকাল বুঝি উল্টেই গেল! নইলে সাধুদের তো আর তিন কোটি টাকার গয়না পরার কথা নয়।






মন্তব্য চালু নেই