মেইন ম্যেনু

সোনিয়া-মনমোহনকে আটকের পর ছেড়ে দিলো পুলিশ

পুলিশের ব্যারিকেড ভেঙে মিছিল নিয়ে এগোনোয় কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী ও প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহকে আটক করেছে পুলিশ। এর কিছুক্ষণ পর অবশ্য তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

গণতন্ত্র বাঁচানোর দাবিতে সোনিয়া-মনমোহনের নেতৃত্বে নয়াদিল্লির রাজপথে শুক্রবার পদযাত্রার ডাক দিয়েছিল কংগ্রেস। পার্লামেন্ট ভবন পর্যন্ত যাওয়ার কথা ছিল মিছিলের। কিন্তু মাঝপথেই ব্যারিকেড দিয়ে রাস্তা আটকে দিয়েছিল পুলিশ। সোনিয়া গান্ধীর নেতৃত্বে সেই ব্যারিকেড ভেঙে পার্লামেন্টের দিকে এগোতে থাকে মিছিল। তখনই আটক করা হয় সোনিয়া গান্ধীসহ কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্বকে।

মূলত: অগাস্টাওয়েস্টল্যান্ড কেলেঙ্কারির অভিযোগে পার্লামেন্টের চলতি অধিবেশন শুরু থেকেই উত্তাল। ক্ষমতাসীন বিজেপির দাবি, কংগ্রেস ক্ষমতায় থাকাকালে ইতালির অগাস্টাওয়েস্টল্যান্ড হেলিকপ্টার বিক্রি চুক্তির জন্য ঘুষ প্রদান করেছিলো। তবে কংগ্রেস চ্যালেঞ্জ করে জানিয়েছে, ক্ষমতা থাকলে সিবিআই তদন্ত করিয়ে সরকার প্রমাণ করুক, সোনিয়া গান্ধী কেলেঙ্কারিতে জড়িত। এসব ভুয়া অভিযোগ তুলে সরকার বিরোধী দলকে দমনের মাধ্যমে দেশের গণতান্ত্রিক কাঠামোকে ধ্বংস করে দিতে চাইছে বলেও কংগ্রেস অভিযোগ করছে। সেই অভিযোগ তুলে ধরেই শুক্রবার ‘সেভ ডেমোক্র্যাসি মার্চ’-এর ডাক দেওয়া হয়েছিল।

শুক্রবার পার্লামেন্ট অভিমুখী মার্চের আগে সোনিয়া গান্ধী বলেন, ‘যে নাগপুরের (আরএসএস সদর দফতর) অঙ্গুলিহেলনে মোদি সরকার নিয়ন্ত্রিত হয়, সেই নাগপুরকে বলছি, যা খুশি দোষারোপ করতে চান করুন, আমরা মাথা নত করব না। লড়াই কীভাবে করতে হয় তা আমি আমার জীবন থেকেই শিখেছি।’

সরকারের বিরুদ্ধে সমালোচনা করে কংগ্রেস সভানেত্রী বলেন,‘ আজ যারা তাদের সঙ্গে ভিন্নমত পোষণ করছে তাদেরকে হয়রানি করা হচ্ছে। তাদের দিন শেষ হয়ে গেছে। যদি তারা এমন অন্যায় আচরণ অব্যাহত রাখে তাহলে জনগণ তাদের উচিৎ শিক্ষা দেবে।’






মন্তব্য চালু নেই