মেইন ম্যেনু

সোহেল রানার বিয়ের রজত জয়ন্তী আজ

বাংলা চলচ্চিত্রের জীবন্ত কিংবদন্তি নায়ক সোহেল রানা ১৯৯০ সালের ১৬ আগস্ট ড. জিনাত বেগমকে পারিবারিক আয়োজনের মধ্যদিয়ে বিয়ে করেছিলেন। দেখতে দেখতে তাদের দাম্পত্য জীবন পা রাখলো ২৫তম বছরে। তাই এ বছরটিকে স্মরণীয় করে রাখাতে আজ সন্ধ্যায় রাজধানীর উত্তরা ক্লাবে অনুষ্ঠিত হবে বিশেষ পার্টি।

বিয়ের ২৫ বছর পূর্তী উপলক্ষ্যে সোহেল রানা বলেন, ‘দেখতে দেখতে কীভাবে যেন ২৫টি বছর পেরিয়ে গেছে বুঝতেই পারলাম না। চোখের সামনে ছোট্ট জিবরান বেড়ে উঠেছে, বড় হয়েছে। নায়ক হিসেবে একটি চলচ্চিত্রে অভিনয়ও করেছে। সংসারের প্রতি জিনাতের নিবেদিতপ্রাণই মূলত আমাদের সংসারকে সুখের পৃথিবী হিসেবে গড়ে তুলেছে। বাকিটা জীবন স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে সুখে-দুঃখে কাটিয়ে দিতে চাই। তবে জীবনের কাছে আমার একটাই চাওয়া সুস্থ থাকতে থাকতে ভালো থাকতে থাকতে জীবনের শেষ সময়টা যেন দ্রুত শেষ হয়ে যায়। সবার দোয়া ও ভালোবাসার মাঝে বেঁচে থাকতে চাই।’

বিয়ের রজত জয়ন্তী পালন প্রসঙ্গে সোহেল রানা বলেন, ‘আগে কখনই এমন ঘটা করে বিয়ে বার্ষিকী পালন করিনি। আগে শুধু আমাদের বাবা ছেলের জন্মদিন পালন করতাম। কিন্তু এ বছর সবার দোয়ায় আমাদের বিয়ের ২৫ বছর হলো। আল্লাহ আমাদের সুখে-শান্তিতে রেখেছেন; তাই এ দিনটিকে সেলিব্রেট করতে চাই।’

তিনি আরও বলেন, ‘এই দিনে সবার কাছে একটাই দোয়া চাই— স্ত্রী, সন্তান, আত্মীয়স্বজন নিয়ে যেন বাকিটা জীবন আরও সুখে শান্তিতে কাটাতে পারি। সেই সঙ্গে সবার ভালবাসায় সোহেল রানা হিসেবে চলচ্চিত্র শিল্পের সেবা করতে পারি।’

মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক চলচ্চিত্র ‘ওরা এগারোজন’ প্রযোজনার মধ্যদিয়ে চলচ্চিত্রের সঙ্গে সম্পৃক্ত হন সোহেল রানা। মাসুদ রানা অবলম্বনে যখন ‘মাসুদ রানা’ চলচ্চিত্রটি নির্মাণ করতে যান তখন প্রয়াত সুমিতা দেবী, এস এম শফি, মোস্তাফিজ আহমদ জামান চৌধুরীর পরামর্শে তিনি নিজেই নায়ক হিসেবে অভিনয় শুরু করেন ‘মাসুদ রানা’ চলচ্চিত্রে ১৯৭৪ সালে। এটি তিনি নিজেই নির্মাণ করেছিলেন।

এরপর থেকে আজ পর্যন্ত প্রায় তিনশ’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। পাশাপাশি ত্রিশটি চলচ্চিত্র প্রযোজনা ও বিশটি চলচ্চিত্র নির্দেশনাও দিয়েছেন। তার নির্দেশিত সর্বশেষ চলচ্চিত্র ছিল ‘রিটার্ন টিকিট’। আসছে ১৪ আগস্ট মুক্তি পেতে যাচ্ছে সোহেল রানা অভিনীত এস এ হক অলিক পরিচালিত ‘আরো ভালোবাসবো তোমায়’ চলচ্চিত্রটি।

উল্লেখ্য মাসুদ পারভেজ থেকে সোহেল রানা নামটি দিয়েছিলেন প্রয়াত বরেণ্য চলচ্চিত্র সাংবাদিক, চিত্রনাট্যকার, কাহিনীকার ও গীতিকার আহমদ জামান চৌধুরী।






মন্তব্য চালু নেই