মেইন ম্যেনু

স্কুলে বিনামূল্যে স্যানেটারি ন্যাপকিন চায় ছাত্রীরা

ঋতুকালীন মেয়েরা মাসের চার/পাঁচ দিন ক্লাসে উপস্থিত থাকতে পারে না। এর ফলে তাদের পড়াশোনায় ক্ষতি হয়। তাই এ সময় মেয়েদের জন্য স্কুলেই বিনামূল্যে স্যানেটারি ন্যাপকিন রাখার দাবি জানিয়েছে চাইল্ড পার্লামেন্টের ক্ষুদে সাংসদরা। যদিও আমাদের পাশের দেশ ভারতের অনে রাজ্যেই স্কুলে বিনামূল্যে স্যানেটারি ন্যাপকিন দেয়া হয়।

মঙ্গলবার রাজধানীর স্পেক্ট্রা কনভেনশন সেন্টারে আয়েজিত ‘দেশের মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পানি ও পয়নিষ্কাশন ব্যবস্থার উন্নয়নে সরকারি বাজেট বৃদ্ধি’ বিষয়ে চাইল্ড পার্লামেন্টের ১৩তম অধিবেশনে ক্ষুদে সাংসদরা তাদের সমস্যাগুলো সমাধানের দাবি জানায়। এসময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

তারকা চিহ্নিত এক প্রশ্নে মেয়েদের ঋতুকালের বিষয়টি তুলে ধরা হয়। সাংসদরা বলে, স্কুলগুলোতে টয়লেট বা অন্যকোনো ব্যবস্থা না থাকার কারণে ঋতুকালে শিক্ষার্থীদের খুব সমস্যায় পড়তে হয়। অজ্ঞতা, ভয়, শারীরিক দুর্বলতা এবং অব্যবস্থাপনার কারণে মেয়েরা মাসের চার/পাঁচ দিন ক্লাসে উপস্থিত থাকতে পারে না। এর ফলে তাদের পড়াশোনায় ক্ষতি হয়। এমনকি অনেকে উপবৃত্তির টাকা থেকেও বঞ্চিত হয়।

সম্পূরক প্রশ্নে বলা হয়, ঋতুকালীন বিষয়গুলো নিয়ে কথা বলার জন্য একজন শিক্ষক নিয়োগ দিলে শিক্ষার্থীরা তাদের সমস্যার বিষয়গুলো সহজে জানতে পারবে। বুঝতে পারবে এবং ব্যবস্থা নিতে পারবে।

সম্পূরক প্রশ্নে আরেক সাংসদ বলে, স্কুলগুলোতে স্যানেটারি ন্যাপকিন রাখা যেতে পারে এক্ষেত্রে বড় বড় বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানগুলো এগিয়ে আসতে পারে।

তারকা চিহ্নিত চতুর্থ প্রশ্নে মাধ্যমিক স্কুলের টয়লেট সঙ্কটের বিষয়টি তুলে ধরে বলা হয়, যেখানে প্রতি ৫০ জন শিক্ষার্থীর জন্য একটি টয়লেট থাকার কথা সেখানে শতাধিক শিক্ষার্থী একটি টয়লেট ব্যবহার করে।

সম্পূরক প্রশ্নে ম্যানেজিং কমিটিকে দায়িত্ব নেয়ার কথা জানিয়ে জবাবদিহিতামূলক শিক্ষাব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানানো হয়।






মন্তব্য চালু নেই