মেইন ম্যেনু

স্তনে যেসব পরিবর্তন দেখা দিলে অবশ্যই যাবেন চিকিৎসকের কাছে

মানব শরীরের একটি খুবই স্বাভাবিক অঙ্গ হলেও এটি একটু বিশেষভাবে মহিমান্বিত। নারীর স্তনেই রয়েছে তার সন্তানের প্রথম খাদ্য। আর শারীরিক সৌন্দর্যে এর অবদানের কথা বলাই বাহুল্য। তবুও যেন এই স্তনের ব্যাপারেই নারীদের অসচেতনতা। বিশেষ করে রোগের ব্যাপারে। স্তনের কিছু পরিবর্তন বয়ে নিয়ে আসতে বিপদের বার্তা। তাই চিনে নিন কিছু লক্ষণ এবং হোন সতর্ক।

ফুসকুড়ি

আমরা সাধারণত পাত্তা দিতে চাই না। কিন্তু এই ফুসকুড়ি যদি দেখা দেয় স্তনে, বিশেষ করে স্তনবৃন্তের আশেপাশে তাহলে মোটেও হেলাফেলা করা উচিত নয়। এটা হতে পারে স্তনে অ্যালার্জির লক্ষণ, এমনকি স্তন ক্যান্সারেরও। তাই অবশ্যই চিকিত্‍সকের পরামর্শ নিন।

কুঁচকে যাওয়া

স্তনের চামড়া কুঁচকে যাওয়া বা টোল খাওয়া বড় বিপদের লক্ষণ হতে পারে। এটি স্তন ক্যান্সারের প্রধান লক্ষণগুলোর মধ্যে অন্যতম। তাই হেলাফেলা না করে চিকিত্‍সকের শরণাপন্ন হোন।

চুলকানি

স্তনের বিভিন্ন অংশ চুলকাচ্ছে? প্রথমেই বলে রাখি, স্তনের চামড়া ভীষণ পাতলা, তাই জোরে জোরে চুলকালে ছিলে যেতে পারে, কেটে যেতে পারে, রক্তপাতও হতে পারে। আর সবচেয়ে বড় সমস্যা হলো চাপ লেগে রক্ত জমাট বেঁধে ব্যথা হতে পারে। তাই স্তনে ঘনঘন চুলকানি হতে থাকলে চিকিত্‍সকের কাছে যান।

টোল পড়া

অনেকেরই স্তনের চামড়া ঢিলা থাকায় টোল পড়ে। কিন্তু এটাও মনে রাখা জরুরি যে, কুঁচকে যাওয়ার মতো টোল পড়াও কিন্তু বিপদ অর্থাত্‍, স্তন ক্যান্সারের লক্ষণ হতে পারে। আপনার স্তনে যদি হঠাত্‍ টোল পড়া শুরু করে তাহলে অতিসত্বর চিকিত্‍সকের সাথে যোগাযোগ করুন।

চাকা অনুভব

পিরিয়ড শেষ হবার পর স্তন পরীক্ষা করা খুবই জরুরি। কারণ এ সময়টাতেই পরিষ্কারভাবে বোঝা যায় যে স্তনে কোনো চাকা বা গোটার উপস্থিতি আছে কি না। স্তনে চাকা অনুভূত হওয়া মাত্রই চিকিত্‍সকের কাছে যাওয়া উচিত। কারণ স্তন ক্যান্সার স্তনে এক ধরনের চাকা হিসেবে দেখা দিতে পারে। শতকরা ৮০ শতাংশ বা তার চেয়ে বেশি ক্ষেত্রে নারীরা স্তনে চাকা অনুভব করে থাকে।
ব্যথা

অ্যালার্জি

স্তনে বিভিন্ন কারণে অ্যালার্জি হতে পারে। অনেক সময় অন্তর্বাসের কারণেও অ্যালার্জি হয়। অ্যালার্জি কারণ যা-ই হোক না কেন চিকিত্‍সকের পরামর্শ নেওয়া জরুরি। কারণ আপনি যেটাকে সাধারণ অ্যালার্জি ভাবছেন সেটা হতে পারে স্তন ক্যান্সারের লক্ষণ। কারণ স্তন ক্যান্সারের একটি উপসর্গ হলো Paget রোগ। এই অসুখে স্তনের চামড়াতে অ্যালার্জি বা এগজিমার মতো পরিবর্তন আসে। যেমন লালচে ভাব, স্তনের চামড়া ও রঙে পরিবর্তন আসা, স্তনের চামড়া উঠে যাওয়া ইত্যাদি।

কষ বা পুঁজ নিঃসরণ

স্তনবৃন্তের আশেপাশে কোনো ক্ষত বা স্তনবৃন্ত থেকেই যদি কষ বা পুঁজ নিঃসৃত হতে থাকে তাহলে দেরি না করে দ্রুত চিকিত্‍সকের কাছে যান। কারণ এটা হতে পারে ক্যান্সারের মতো ভয়াল রোগের উপসর্গ।

তথ্যসূত্র: ইবনে সিনা হেলথ ম্যাগাজিন,
লিভিংস্ট্রং ডটকম,
রোকেয়া হালদার, স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ, মাতৃসদন, বগুড়া






মন্তব্য চালু নেই